সদ্য সংবাদ

 সিদ্ধিরগঞ্জে কোনো মাদক,ভূমি দস্যু ও সন্ত্রাসীদের স্থান হবে না- এসপি  এমপি কামরুল ইসলামের ফোন রেকর্ড প্রকাশ: ডিশ ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার  করোনার টিকা বন্টনে ১৫৬ দেশের ‘ঐতিহাসিক চুক্তি’  নুরের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  মিথ্যা মামলা রাজপথেই মোকাবিলা করব: ভিপি নুর   কম্বোডিয়ায় নারীর খোলামেলা পোশাক পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা   রিমান্ড শেষে তিতাসের ৮ কর্মকর্তা-কর্মচারী জামিনে মুক্ত  স্বাস্থ্যের ২০ জনের সম্পদের হিসাব তলব   ট্রাম্পকে বিষ মেশানো চিঠি : এক নারী গ্রেফতার  বিক্ষোভ মিছিল থেকে ভিপি নুর আটক  আড়াইহাজারে ডাকাতদের অস্ত্রের আঘাতে মহিলাসহ আহত ৪  ডিপিডিসির প্রকৌশলী মাহাবুব ক্ষমতার দাপটে তিনটি পদ দখলে!  স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভারের ঢাকায় দুটি ৭ তলা বিলাসবহুল ভবন!  শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, প্রস্তুতি নিন: প্রধানমন্ত্রী  ওসি প্রদীপ ও স্ত্রী চুমকির সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ  থাই রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে তরুণদের বিক্ষোভ   কে হচ্ছেন আহমদ শফীর উত্তরসূরি?  সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্ঠনী তৈরী করা হবে- রেল মন্ত্রী   নৌ প্রতিমন্ত্রীর সুস্থতা কামনায় বিআইডব্লিউটিএ দোয়া   করোনায় পুলিশের ‘বীরত্বগাঁথা’ নিয়ে বই

অনিয়ম ঠেকাতে সরকারি ৫ প্রতিষ্ঠানে টিম গঠন করেছে দুদক

 Tue, Jan 24, 2017 9:30 AM
অনিয়ম ঠেকাতে সরকারি ৫ প্রতিষ্ঠানে টিম গঠন করেছে দুদক

ডেস্ক রিপোর্ট:: অনিয়ম ঠেকাতে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে পাঁচ সদস্যের প্রতিষ্ঠানিক টিম গঠন করেছে (দুর্নীতি দমন কমিশন) দুদক।

 সরকারি প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন সময় নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার নজরদারিতে এনেছে গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি প্রতিষ্ঠান। সেই সাথে ওই সকল প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি খুঁজবে দায়িত্ব প্রাপ্ত দুদক কর্মকর্তারা।
সোমবার দুদক কার্যলয় ওই টিম গঠনের জন্য অনুমোদন দেয়। দুদক সুত্রে জানা যায়, এ কে এম জায়েদ হাসান খানের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ, মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে দেশের সব ¯’লবন্দর, বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর, খন্দকার এনামুল বাছিরের নেতৃত্বে ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে পরিবেশ অধিদপ্তরে নজরদারি করা হবে। এর আগে রাজউক, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর, জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ, স্বা¯’্য অধিদপ্তর ও স্বা¯’্য মন্ত্রণালয়, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর এবং মাধ্যমিক ও উ”চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে নজরদারির জন্য পাঁচটি বিশেষ প্রাতিষ্ঠানিক দল গঠন করা হয়। সে সময়ও পাঁচজন পরিচালককে দলগুলোর দায়িত্ব দেওয়া হয়। সাধারন মানুষ ওইসব প্রতিষ্ঠানে সেবা নিতে এলে তারা দুর্নীতির শিকার হয়। দুর্নীতির শিকার সাধারন মানুষের অনেক অভিযোগ জমা পড়ে দুদকে। তাদের সেবা ও  ভোগান্তি লাঘবে নতুন করে প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো গঠন করা হয়েছে। নতুন গঠিত পাঁচটি দলের নেতৃত্ব দেবেন সং¯’ার পাঁচ পরিচালক। গঠিত তিন সদস্যের ওসব দলে একজন করে উপরিচালক ও সহকারী পরিচালক রয়েছেন।

দুদকের বিশেষ অনুসন্ধান বিভাগের মহাপরিচালকের তত্ত্বাবধানে এসব দল কাজ করলেও সং¯’ার মহাপরিচালক মুনির চৌধুরী এসব দলের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন বলে জানা গেছে। সূত্র আরও জানায়, কিছু প্রতিষ্ঠানকে মানুষ কেন দুর্নীতিপ্রবণ হিসেবে মনে করে, তা খুঁজে দেখতে চায় সং¯’াটি। নিয়মনীতি বা প্রক্রিয়ার দুর্বলতার কারণে দুর্নীতি হ”েছ কি না, সেটাও খুঁজে দেখা হবে।  প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো সরকারি এসব প্রতিষ্ঠানের আইন, বিধিবিধান পর্যালোচনা করে দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধে সুপারিশ করবে। পাশাপাশি দুর্নীতির তথ্য পেলে তাৎক্ষণিক ব্যব¯’া নেওয়া হবে। প্রথম আলো এক প্রতিবেদনে জানা যায়,১৮ জানুয়ারি গুরুত্বপূর্ণ ১৫টি সরকারি প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি প্রতিরোধ ও দমনে সং¯’ার আট পরিচালকের নেতৃত্বে ১৪টি প্রাতিষ্ঠানিক দল গঠন করে দুদক। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (ওসিজিএ), বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ বিমান, সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আরটিএ), কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট, আয়কর বিভাগ, গণপূর্ত অধিদপ্তর, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ), বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আইডব্লিউটিএ), বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সং¯’া (বি আইডব্লিউটিসি), ঢাকা ওয়াসা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ রেলওয়ে, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি এবং ঢাকা মহানগরের সব সাব-রেজিস্ট্রি অফিস।

সূত্র আরও জানায়,প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের আইন, বিধি, পরিচালনার পদ্ধতি এবং ওসব প্রতিষ্ঠানে সরকারি অর্থ অপচয়ের দিকগুলো পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করবে। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক, নাগরিক সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা, প্রতিবন্ধকতা, সেবা গ্রহীতাদের হয়রানি, দুর্নীতির কারণ ও দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করবে। সার্বিক বিশ্লেষণসহ দলের প্রতিবেদন ও সুপারিশ ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনে জমা দেবে দলগুলো। পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলোর মেয়াদকালে ওসব প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেলে সেগুলো আলাদাভাবে অনুসন্ধান করা হবে।৫ সদস্যের টিম গঠন করেছে দুদক
অনিয়ম ঠেকাতে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে পাঁচ সদস্যের প্রতিষ্ঠানিক টিম গঠন করেছে (দুর্নীতি দমন কমিশন) দুদক। সরকারি প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন সময় নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার নজরদারিতে এনেছে গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি প্রতিষ্ঠান। সেই সাথে ওই সকল প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি খুঁজবে দায়িত্ব প্রাপ্ত দুদক কর্মকর্তারা।

সোমবার দুদক কার্যলয় ওই টিম গঠনের জন্য অনুমোদন দেয়। দুদক সুত্রে জানা যায়, এ কে এম জায়েদ হাসান খানের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ, মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে দেশের সব ¯’লবন্দর, বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর, খন্দকার এনামুল বাছিরের নেতৃত্বে ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে পরিবেশ অধিদপ্তরে নজরদারি করা হবে। এর আগে রাজউক, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর, জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ, স্বা¯’্য অধিদপ্তর ও স্বা¯’্য মন্ত্রণালয়, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর এবং মাধ্যমিক ও উ”চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে নজরদারির জন্য পাঁচটি বিশেষ প্রাতিষ্ঠানিক দল গঠন করা হয়। সে সময়ও পাঁচজন পরিচালককে দলগুলোর দায়িত্ব দেওয়া হয়। সাধারন মানুষ ওইসব প্রতিষ্ঠানে সেবা নিতে এলে তারা দুর্নীতির শিকার হয়। দুর্নীতির শিকার সাধারন মানুষের অনেক অভিযোগ জমা পড়ে দুদকে। তাদের সেবা ও  ভোগান্তি লাঘবে নতুন করে প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো গঠন করা হয়েছে। নতুন গঠিত পাঁচটি দলের নেতৃত্ব দেবেন সং¯’ার পাঁচ পরিচালক। গঠিত তিন সদস্যের ওসব দলে একজন করে উপরিচালক ও সহকারী পরিচালক রয়েছেন।

দুদকের বিশেষ অনুসন্ধান বিভাগের মহাপরিচালকের তত্ত্বাবধানে এসব দল কাজ করলেও সং¯’ার মহাপরিচালক মুনির চৌধুরী এসব দলের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন বলে জানা গেছে। সূত্র আরও জানায়, কিছু প্রতিষ্ঠানকে মানুষ কেন দুর্নীতিপ্রবণ হিসেবে মনে করে, তা খুঁজে দেখতে চায় সং¯’াটি। নিয়মনীতি বা প্রক্রিয়ার দুর্বলতার কারণে দুর্নীতি হ”েছ কি না, সেটাও খুঁজে দেখা হবে।  প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো সরকারি এসব প্রতিষ্ঠানের আইন, বিধিবিধান পর্যালোচনা করে দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধে সুপারিশ করবে। পাশাপাশি দুর্নীতির তথ্য পেলে তাৎক্ষণিক ব্যব¯’া নেওয়া হবে। প্রথম আলো এক প্রতিবেদনে জানা যায়,১৮ জানুয়ারি গুরুত্বপূর্ণ ১৫টি সরকারি প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি প্রতিরোধ ও দমনে সং¯’ার আট পরিচালকের নেতৃত্বে ১৪টি প্রাতিষ্ঠানিক দল গঠন করে দুদক। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (ওসিজিএ), বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ বিমান, সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আরটিএ), কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট, আয়কর বিভাগ, গণপূর্ত অধিদপ্তর, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ), বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বি আইডব্লিউটিএ), বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সং¯’া (বি আইডব্লিউটিসি), ঢাকা ওয়াসা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, বাংলাদেশ রেলওয়ে, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি এবং ঢাকা মহানগরের সব সাব-রেজিস্ট্রি অফিস।

সূত্র আরও জানায়,প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলো সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের আইন, বিধি, পরিচালনার পদ্ধতি এবং ওসব প্রতিষ্ঠানে সরকারি অর্থ অপচয়ের দিকগুলো পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করবে। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক, নাগরিক সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা, প্রতিবন্ধকতা, সেবা গ্রহীতাদের হয়রানি, দুর্নীতির কারণ ও দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করবে। সার্বিক বিশ্লেষণসহ দলের প্রতিবেদন ও সুপারিশ ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনে জমা দেবে দলগুলো। পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক দলগুলোর মেয়াদকালে ওসব প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেলে সেগুলো আলাদাভাবে অনুসন্ধান করা হবে।


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন