সদ্য সংবাদ

 সিদ্ধিরগঞ্জে কোনো মাদক,ভূমি দস্যু ও সন্ত্রাসীদের স্থান হবে না- এসপি  এমপি কামরুল ইসলামের ফোন রেকর্ড প্রকাশ: ডিশ ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার  করোনার টিকা বন্টনে ১৫৬ দেশের ‘ঐতিহাসিক চুক্তি’  নুরের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী  মিথ্যা মামলা রাজপথেই মোকাবিলা করব: ভিপি নুর   কম্বোডিয়ায় নারীর খোলামেলা পোশাক পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা   রিমান্ড শেষে তিতাসের ৮ কর্মকর্তা-কর্মচারী জামিনে মুক্ত  স্বাস্থ্যের ২০ জনের সম্পদের হিসাব তলব   ট্রাম্পকে বিষ মেশানো চিঠি : এক নারী গ্রেফতার  বিক্ষোভ মিছিল থেকে ভিপি নুর আটক  আড়াইহাজারে ডাকাতদের অস্ত্রের আঘাতে মহিলাসহ আহত ৪  ডিপিডিসির প্রকৌশলী মাহাবুব ক্ষমতার দাপটে তিনটি পদ দখলে!  স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভারের ঢাকায় দুটি ৭ তলা বিলাসবহুল ভবন!  শীতে করোনা পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, প্রস্তুতি নিন: প্রধানমন্ত্রী  ওসি প্রদীপ ও স্ত্রী চুমকির সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ  থাই রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে তরুণদের বিক্ষোভ   কে হচ্ছেন আহমদ শফীর উত্তরসূরি?  সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্ঠনী তৈরী করা হবে- রেল মন্ত্রী   নৌ প্রতিমন্ত্রীর সুস্থতা কামনায় বিআইডব্লিউটিএ দোয়া   করোনায় পুলিশের ‘বীরত্বগাঁথা’ নিয়ে বই

কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে সরকার প্রতারণা করছে!

 Wed, Feb 1, 2017 11:10 AM
কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে সরকার প্রতারণা করছে!

ফারজানা কবীর খান: : এই সরকার সুন্দরবন ধ্বংস করে রামপালে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করেই ছাড়বে।

 আর সেজন্য জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য যত ধরনের মিথ্যাচার, প্রতারণা আর ভন্ডামি করা প্রয়োজন তার সব কিছুই করছে বর্তমান সরকার ও তার সংশ্লিষ্ট সং¯’াগুলো।
সরকারের বিদ্যুৎ বিভাগ (চড়বিৎ উরারংরড়হ) তাদের ফেসবুক পেইজে জার্মানির রাইন নদের তীরের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের কিছু ঝলমলে ছবি প্রচার করে দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করছে, কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের পক্ষে দেশের সহজ সরল মানুষের মগজ ধোলাই করছে।
আমি গত আট বছর ধরে জার্মানিতে থাকি। জার্মানির কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো নিয়ে সৃষ্ট পরিবেশ বিপর্যয়, মানুষ ও পশুপাখিদের জীবনে হুমকি আর এ সংক্রান্ত রাজনৈতিক সংকটের নিয়মিত খোঁজ-খবর রাখি। প্রকৃত সত্যিটি হ”েছ- পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে ২০২২ সালের মধ্যে জার্মানির সব কয়টি কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর রাইন নদের পাড়ের মূলহাইম ক্যারলিশের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণ কাজ শেষ হলেও সেই অঞ্চলের পরিবেশের ওপর ঝুঁকি এবং জনগণের আন্দোলনের মুখে তা কখনও চালুই করা হয়নি। উল্টো পাঁচ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে তা ভেঙ্গে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

জার্মানির কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কারণে পরিবেশ, বন্যপ্রাণী আর জনগণের জীবনের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ার কারণে ২০২২ সালের মধ্যে এ দেশের সকল কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো ভেঙ্গে ফেলা বা বন্ধের সিদ্ধান্তের নির্ভরযোগ্য খবর এখানে আছে – (যঃঃঢ়ং://িি.িুড়ঁঃঁনব.পড়স/ধিঃপয়া=ীঈৎঠণফ৩ধকপঅ্ভবধঃঁৎব=ুড়ঁঃঁ.নব) (যঃঃঢ়ং://বহ.স.রিশরঢ়বফরধ.ড়ৎম/রিশর/গ%ঈ৩%ইঈষযবরস-ক%ঈ৩%অ৪ৎষরপযথঘঁপষবধৎথচড়বিৎথচষধহঃ) ।

বাংলাদেশ সরকার আর তার সংশ্লিষ্ট সং¯’াগুলোকে সাবধান করে দি”িছ, দেশের সহজ সরল জনগণকে মিথ্যাচার, ভন্ডামি আর চালাকির মাধ্যমে বুঝিয়ে রামপালে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করে বিশ্বের অন্যতম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সুন্দরবন, অসংখ্য দুর্লভ বন্যপ্রাণী আর এ অঞ্চলের মানুষের জীবনকে বিপর্যস্ত করলে জনগণ আপনাদেরকে কখনোই ক্ষমা করবে না।

ফারজানা কবীর খান এর ফেসবুক থেক


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন