সদ্য সংবাদ

  ভারতের মতো মানসম্পন্ন পেসার আমাদের নেই: নান্নু  নারায়ণগঞ্জ পেঁয়াজের বাজার জেলা প্রশাসনের অভিযান   এবার মিলারদের কারসাজিতে চালের বাজারও অস্থির  নতুন নাটকে মডেল সাবরিনা প্রমি   স্বেচ্ছা‌সেবক লী‌গের সভাপ‌তি নির্মল, সম্পাদক বাবু  ইউক্রেন কাণ্ড: সাক্ষীকে ‘ভয়’ দেখাচ্ছেন ট্রাম্প  পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিন, সিন্ডিকেট ভেঙে যাবে: গয়েশ্বর   নবীনগরে দুই সহযোগীসহ ইয়াবা সম্রাট গ্রেফতার   সাংবাদিক আব্দুস সাত্তারের মৃত্যু  পেঁয়াজ আমদানীতে সরকারকে কোন শুল্ক দিতে হয় না - অর্থমন্ত্রী   পেঁয়াজ বিমানে উঠে গেছে, কাজেই আর চিন্তা নাই: প্রধানমন্ত্রী  অস্ত্রবিরতি সত্ত্বেও গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলা  সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন নির্যাতিত সুমিসহ ৯১ নারী  সরকার নিজেই সিন্ডিকেট তৈরি করে পেঁয়াজের দাম বাড়াচ্ছে: ন্যাপ  জনবান্ধব পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলামে আস্থা নারায়ণগঞ্জবাসীর  টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা যুবক নিহত, লক্ষাধিক ইয়াবাসহ অস্ত্র উদ্ধার  প্লাজমা ফাউন্ডেশনের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন  নবীনগরে এসএসসির ফরম পূরণে অনিয়মের অভিযোগ,  তুরস্কসহ চার দেশ থেকে বিমানে আসছে পেঁয়াজ  মহেশপুরে পুলিশের গুলিতে মাদক ব্যবসায়ী আহত

প্যারিসে হোটেলে ধর্ষণের শিকার হতে পারতেন কিম কারদেশিয়ান

 Tue, Mar 21, 2017 10:37 AM
প্যারিসে হোটেলে ধর্ষণের শিকার হতে পারতেন কিম কারদেশিয়ান

ডেস্ক রিপোর্ট :: গত বছর ৩ অক্টোবর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের একটি হোটেলে ছিনতাইকারীদের

হাতে বন্দি হয়েছিলেন রিয়েলিটি শো’র তারকা কিম কারদেশিয়ান। ওই রাতে ছিনতাইকারীরা তার কয়েক মিলিয়ন মূল্যের অলঙ্কার ও ইউরো ছিনিয়ে নেয়।

রোববার রাতে ‘কিপিং আপ উইথ কারদেশিয়ান’ অনুষ্ঠানে তিনি প্রথমবারের মতো বললেন, ওই রাতে তিনি ছিনতাইকারীদের হাতে ধর্ষণেরও শিকার হতে পারতেন। এমন কি খুনও হয়ে যেতে পারতেন।

অনুষ্ঠানে কারদেশিয়ান বললেন, ‘বন্দুকদারী দুজন প্রথমে টেপ দিয়ে আমার মুখ বন্ধ করে ফেলে। তারপর আমাকে বিছানায় ফেলে দেয়। আমার গাঁয়ে নিচের কোনো পোশাক ছিল না। তাদের একজন আমার উপরে চড়ে বলে, হ্যাঁ, এই হ”েছ সময় ৃ.’ কারদেশিয়ান কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘আমি ধর্ষণের শিকার হওয়ার জন্য মানসিকভাবে একেবারে প্র¯‘তি নিয়ে ফেলেছিলাম। লোকটি আমার দুপা টেনে ধরেছিল। ’

কিš‘, তাদের একজন হঠাৎ আমার মাথায় বন্দুক চেপে ধরে। আমি ভাবছিলাম তারা আমাকে এক্ষুণি মেরে ফেলবে। আমি মনে মনে প্রার্থনা করছিলাম আমার মৃত্যুর পর যেন আমার মেয়েটার জীবন স্বাভাবিক থাকে।’

শেষ পর্যন্ত তারা আমাকে মারেনি, ধর্ষণও করেনি। হাত পা বেঁধে রেখে বাথরুমে নিয়ে ফেলে রাখে আর আমার বহুমূল্যের গয়না ও অর্থকড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়।

তারপর অবশ্য এই ঘটনার জন্য ১৭ সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়। তাদের ১০ জনের বিরুদ্ধে এখনো মামলা চলছে। সিএনএন,

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন