সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

মৃত নারী ভক্তের উপহার ফিরিয়ে দিলেন সঞ্জয়

 Mon, Mar 19, 2018 1:09 PM
মৃত নারী  ভক্তের উপহার ফিরিয়ে দিলেন সঞ্জয়

ডেস্ক রিপোর্ট : : ভারতীয় অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। সঙ্গত কারণেই ভারতজুড়ে তার রয়েছে অসংখ্য

 ভক্ত যাদের মধ্যেই একটি বড় অংশই নারী। ভক্তরা অনেক সময় প্রিয় তারকাকে উপহার স্বরূপ অনেক কিছু পাঠিয়ে থাকেন। কিন্তু সম্প্রতি এক নারী ভক্তের দেয়া উপহার বিস্মিত করেছে সঞ্জয় দত্তকে। মিস্টার দত্ত শেষ পর্যন্ত উপহারটি গ্রহণ করেননি।


নিশি হরিশচন্দ্র ত্রিপাঠি বাস করতেন মুম্বাইতেই। গত জানুয়ারিতে তিনি মারা যান। তার মৃত্যুর পর একটি ব্যাংক থেকে ফোন পান সঞ্জয় দত্ত। সেখানে তাকে জানানো হয় যে, নিশি হরিশচন্দ্র ত্রিপাঠি তার অর্থ ও সম্পদের প্রাপক হিসেবে তাকে অর্থাৎ সঞ্জয় দত্তকে মনোনীত করে গেছেন।


সঞ্জয় দত্ত ব্যাংককে জানান যে ভক্তের এ ধরণের আচরণে তিনি আপ্লুত কিন্তু তার অর্থ সম্পদের ওপর থেকে তার অধিকার তিনি তুলে নিচ্ছেন।


তার আইনজীবী সুভাষ যাদব বলেন, মিজ ত্রিপাঠি তার সেভিংস অ্যাকাউন্ট ও লকারের নমিনি তাকে করেছেন ব্যাংকের কাছ থেকে এ খবর পেয়ে সঞ্জয় দত্ত রীতিমত বিস্মিত হয়েছেন। তবে সেখানে কি পরিমাণ অর্থ সম্পদ ছিলো তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।


সঞ্জয় দত্ত বলেছেন যেহেতু ওই ভক্তকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে চিনেন না এবং দুজনের কখনো দেখাও হয়নি তাই তার সম্পদের ওপর থেকে অধিকার তিনি তুলে নিয়েছেন।


বরং ত্রিপাঠির পরিবারকে আইনগত প্রক্রিয়া শেষ করে কিভাবে অর্থ ও লকারে থাকা মূল্যবান সামগ্রী ফিরিয়ে দেয়া যায় সেটিই এখন দেখছেন মি. দত্তের আইনজীবীরা। জানা গেছে, ত্রিপাঠির ৮০ বছর বয়সী মা ও তিন সহোদর আছে পরিবারে।


সূত্র: বিবিসি

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন