সদ্য সংবাদ

 লাগাম টানা যাচ্ছে না সিন্ডিকেটের, দিশেহারা ভোক্তারা  কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে ৫ বিদ্রোহী নিহত  ব্যবসা নাই তবুও কোটি কোটি টাকার মালিক : আইভী  স্ত্রী-ছেলেসহ ডিবি কার্যালয়ে মুসা বিন শমসের   সিদ্ধিরগঞ্জে কাউন্সিলর প্রার্থীর পোষ্টার লাগাতে বাধা, মারধর  শাহরুখপুত্রকে গ্রেফতার করা সেই কর্মকর্তা নজরদারিতে   হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়া   করোনায় আক্রান্ত শিক্ষকের বেতন কাটলো দুর্নীতিগ্রস্ত জহিরুল হকের কমিটি   ছিনতাই ও খুনি চক্রের ৬ জনকে গ্রেপ্তার করছে পিবিআই নাঃগঞ্জ   খুনি নূর হোসেনের ভাতিজা বাদল ভালো, মেয়র আইভী ব্যর্থ!   সরকারি কর্মচারীদের গ্রেফতারে অনুমতির বিধান কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট  বাড়ি ভারতে, অফিস করেন সিলেটে  আবারও ষড়যন্ত্র হচ্ছে: ওবায়দুল কাদের   ই-কমার্সের প্রতারনায় ভুক্তভোগী বাণিজ্যমন্ত্রী  সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু   ১০ হাজার ৫০০ শ্রমিককে ভিসা দেবে যুক্তরাজ্য  দেবীগঞ্জে বাসর রাতে পাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু  ‘চুনকা কুটির নয়, আইভীর হোয়াইট ওয়াশের জ্বালা বিরোধী পক্ষ  বিয়ের পর আমাদের বন্ধুত্ব গাঢ় হচ্ছে: মাহি  বাংলাদেশে কেউ ভালো নেই : মির্জা ফখরুল

লাগাম টানা যাচ্ছে না সিন্ডিকেটের, দিশেহারা ভোক্তারা

 Tue, Oct 12, 2021 7:59 PM
লাগাম টানা যাচ্ছে না সিন্ডিকেটের, দিশেহারা ভোক্তারা

এশিয়া খবর ডেস্ক:: নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য এবং এলপিজির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ও

 সিন্ডিকেট রুখতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার রক্ষা আন্দোলন।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে সংগঠনটি। এসময় বক্তারা বলেন, বৈশ্বিক করোনা মহামারিতে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা দিশেহারা। অনেকে বিদেশ থেকে খালি হাতে দেশে ফিরেছেন। দেশে কাজ হারিয়ে বা ব্যবসা গুটিয়ে অনেকে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এমন একটা পরিস্থিতে সিন্ডিকেটের কারসাজিতে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে। এছাড়া এলপি গ্যাসেরও দিন দিন মূল্যবৃদ্ধি পাচ্ছে। এসব ব্যাপারে সিন্ডিকেটের লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না। এতে দিশেহারা ভোক্তারা।

আলু, পেঁয়াজ, চাল, তেল, এলপিজিসহ বিভিন্ন জিনিসের দাম কমাতে কমিটি গঠন করার দাবি জানানো হয় মানববন্ধন থেকে।

প্রতিবাদ সমাবেশে জাতীয় ভোক্তা অধিকার রক্ষা আন্দোলনের সভাপতি মুহাম্মদ আতা উল্লাহ খান বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েই চলেছে। অথচ আমরা দেখি কৃষক ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না। আবার ভোক্তারাও চড়া দামে পণ্য কিনছেন। সিন্ডিকেটের কবলে পড়ে কৃষক এবং ভোক্তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

তিনি আরও বলেন, নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলো নীরব দর্শকের ভূমিকায়। সরকার নির্বিকার। কৃষক ঠকে মাঠে আর ভোক্তারা ঠকে হাটে।

বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, যখন সরকার নিজেই ঘোষণা দেয় যে দু-এক মাসের মধ্যে নিত্যপণ্যের দাম কমবে না, তখন মুনাফাখোর ব্যবসায়ীরা দ্রব্যের দাম আরও বাড়াতে থাকে। এর মধ্যে হঠাৎ এলপিজির দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ভোক্তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

জাতীয় জাগো নারী ফাউন্ডেশনের অর্থ সম্পাদক রেহেনা আকতার বলেন, দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে প্রায়ই রাস্তায় দাঁড়াতে হয়। অথচ দাম কমাতে উদ্যোগ নেওয়া হয় না। এদিকে কৃষকও কিন্তু ন্যায্যমূল্য পান না। ফলে একদিকে উৎপাদনকারীরা বঞ্চিত হচ্ছেন, অন্যদিকে ভোক্তারা কষ্ট পাচ্ছেন।

মানববন্ধন ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন গর্জো এর সভা প্রধান সৈয়দ মনিরুজ্জামান লিটু, জাতীয় ভোক্তা অধিকার রক্ষা আন্দোলনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মুমিনুল ইসলাম, অনলাইন জার্নালিস্ট ফোরাম অব বাংলাদেশের আহ্বায়ক মাহফুজ জাহিদ প্রমুখ।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন