সদ্য সংবাদ

 অস্ত্রবিরতি সত্ত্বেও গাজায় ইসরাইলি বিমান হামলা  সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন নির্যাতিত সুমিসহ ৯১ নারী  সরকার নিজেই সিন্ডিকেট তৈরি করে পেঁয়াজের দাম বাড়াচ্ছে: ন্যাপ  জনবান্ধব পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলামে আস্থা নারায়ণগঞ্জবাসীর  টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা যুবক নিহত, লক্ষাধিক ইয়াবাসহ অস্ত্র উদ্ধার  প্লাজমা ফাউন্ডেশনের ৩য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন  নবীনগরে এসএসসির ফরম পূরণে অনিয়মের অভিযোগ,  তুরস্কসহ চার দেশ থেকে বিমানে আসছে পেঁয়াজ  মহেশপুরে পুলিশের গুলিতে মাদক ব্যবসায়ী আহত  এই সেই অ্যাকশন হিরো রুবেল  বিক্ষোভের মুখে কুয়েত সরকারের পদত্যাগ  ‘ব্যারিস্টার সুমন প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসতে মামলা করেন’  সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেন লাইনচ্যুত, ৪ বগিতে অগ্নিকাণ্ড   প্রধানমন্ত্রীর দুবাই সফরে ৩ চুক্তি স্বাক্ষরের সম্ভাবনা : মোমেন  পেঁয়াজের দাম নিয়ে যা বললেন পার্থ  রোহিঙ্গা নির্যাতন: এবার সু চির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা   পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ  তেঁতুলিয়ায় বৃহত্তম সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী  রেলের গেটম্যানকে মারধরের ব্যাখ্যা দিলেন সেই নারী ইউএনও  নবীনগর পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়রের দায়িত্বভার গ্রহণ

সিদ্ধিরগঞ্জে রংধনু সিনেমা হলে ছবি প্রদর্শনের আড়ালে পতিতা ব্যবসা ॥

 Sun, Nov 19, 2017 4:21 AM
সিদ্ধিরগঞ্জে রংধনু সিনেমা হলে ছবি প্রদর্শনের আড়ালে পতিতা ব্যবসা ॥

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি ॥: সিদ্ধিরগঞ্জে রংধনু সিনেমা হলে ছবি প্রদর্শনের আড়ালে পতিতা ব্যবসা চলছে দেদারসে। প্রতিদিনই সকাল ১১ টা থেকে গভীর রাত

পর্যন্ত বিভিন্ন শো চলার নামে চলছে পতিতাদের দেহ ব্যবসা। হল মালিকদের একজন জয়ের তত্বাবধানে ও হুমায়ুন কবির মিলনের নিয়ন্ত্রণে দীর্ঘদিন ধরে এ হলে পতিতা ব্যবসা চলছে। প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করে এরা পতিতা ব্যবসা করছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। 

জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জের আটি এলাকায় নারায়ণগঞ্জ শিমরাইল সড়কের পাশে অবস্থিত রংধনু সিনেমা হলের রয়েছে ৭ জন মালিক। আটি এলাকার মৃত হারুন-অর-রশিদ, গোদনাইল এলাকার মুক্তিযোদ্ধা মজিবুর রহমান, মুসলিমসহ ৭ জন মালিক রংধনু হলের। হারুন-অর- রশিদ জীবিত থাকা কালে উক্ত হলের ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন ময়মনসিংহের বাসিন্দা হোসাইন কবির মিলন। এ সুযোগে মিলন মৃত হারুনের পরিবারের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে তার মেয়ের সাথে প্রেম করে। এক পর্যায়ে মেয়েকে বিয়ে করে হলের পুরো দায়িত্ব নিয়ে নেয় মিলন। এরপর থেকে মিলনের ইচ্ছায় হল পরিচালিত হতে থাকে। এরপর হারুন-অর রশিদ মৃত্যু বরণ করিলে মিলনের আধিপত্য আরও বৃদ্ধি পায়। মিলন তার আয় বৃদ্ধি করতে হলে ছবি প্রদর্শনের পাশাপাশি নীল ছবি প্রদর্শন করতে থাকে। প্রশাসন অভিযান চালালে কিছু দিন বন্ধ রাখে সুচতুর মিলন। এর কিছুদিন পর থেকে ছবি প্রদর্শনের আড়ালে পতিতা দিয়ে দেহ ব্যবসা করতে থাকে। এবিষয়টি আইন শৃংখলা বাহিনীর নজরে আসলে কৌশলে তার শ্যালক জহিরুল ইসলাম জয়কে দায়িত্ব দিয়ে শটকে পড়ে মিলন। বর্তমানে জয়ের তত্বাবধানেই নিয়মিত দেহ ব্যবসা চলছে হলের অভ্যন্তরে। রাস্তার পাশে হলেও যেন দেখার কেউ নেই। প্রশাসনসহ সকলকে ম্যানেজ করে দেদারসে চালিয়ে যাচ্ছে ছবি প্রদর্শনের আড়ালে দেহ ব্যবসা। 

এ ব্যাপারে জয় জানায়, দর্শক না থাকলেও যথা সময়ে ছবি প্রদর্শন করতে হচ্ছে। হলে পতিতার প্রবেশ বিষয়ে তিনি বলেন,  মেয়েই ছবি দেখতে আসে। কে পতিতা, কে ভালো মেয়ে তা আমার দেখার বিষয় না। এ বিষয়ে মিলন জানায়, হলে পতিতার বিষয়ে আমার কোন বলার নাই। এসব দেখে শালক জয়। পতিতা ব্যবসা প্রসঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্তম কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সাত্তার মিয়া বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই।  তদন্ত করে অপরাধ প্রমানিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।  


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন