সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

সুন্দরী অফিসারের হাতে গ্রেফতার হতে চান অপরাধীরা!

 Fri, Nov 24, 2017 3:51 AM
সুন্দরী অফিসারের হাতে গ্রেফতার হতে চান অপরাধীরা!

ডেস্ক রিপোর্ট : : সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সম্প্রতি এক সুন্দরী পুলিশ কর্মকর্তার ছবি নিয়ে বেশ সোরগোল চলছে ভারতে।

দেশটির অন্ধকার জগতের রথী-মহারথী ছাড়াও পুচকে অপরাধীরা নাকি এই পুলিশ কর্মকর্তার হাতে গ্রেফতার হওয়ার জন্য আকুল হয়ে উঠেছেন।


পাঞ্জাবের এই নারী পুলিশ কর্মকর্তার নাম ‘হরলীন মান’। মাঝারি উচ্চতার গৌরবর্ণ এই পুলিশ অফিসার সম্প্রতি চাকরিতে বহাল হয়েছেন বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কথা চলছে।


তবে পাঞ্জাবের এই নারী পুলিশ কর্মকর্তা কিন্তু আসল পুলিশ নন। এই সুন্দরী পুলিশ অফিসার ‘গ্রেট গ্র্যান্ড মাস্তি’ ছবিতে চুটিয়ে অভিনয় করেছিলেন। সেই ছবিতে তার অ্যাপিয়ারেন্স সেবারও মাথা ঘুরিয়ে দিয়েছিল দর্শকদের।


এই সুন্দরী পুলিশ কর্মকর্তার নাম কাইনাত অরোরা। ‘জগ্গা জিউনদা ই’ নামে একটি পাঞ্জাবি ছবিতে ‘হরলীন মান’ নামে পুলিশ অফিসারের ভূমিকায় অভিনয় করছেন তিনি।


ছবিতে তার সঙ্গে অভিনয় করছেন জ্যাকি শ্রফ ও দলজিৎ কলসি। সম্প্রতি সেই ছবির শুটিংয়ের কয়েকটি ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম পেজে আপলোড করেছিলেন তিনি। আর মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে তার ছবি।


এর মধ্যে ছিল পুলিশি পোশাকের ছবি, যা ছড়িয়ে পড়ে হাতে হাতে। সবাই ভেবে ফেলেন- সত্যিই হরলীন নামে ওই রকম চোখ ধাঁধানো সুন্দরী পুলিশ অফিসার নিয়োগ হয়েছে পাঞ্জাবে।


এতে বেশ বিড়ম্বনায় পড়েছেন কাইনাতও।


দেশটির গণমাধ্যমকে কাইনাত বলেন, প্রথমবার যখন শুনেছিলাম আমার ছবি কেউ পাঞ্জাবি পুলিশ অফিসার পরিচয় দিয়ে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়েছেন, তখন বেশ ঘাবড়েই গিয়েছিলাম। এর পর একের পর এক ফোন ও মেসেজ আসতে শুরু করে। প্রশংসায় ভরে গিয়েছিল মেসেজ বক্স।


সবাই তো চাইছেন আপনার হাতেই গ্রেফতার হতে, এমন প্রশ্নে কাইনাতের উত্তর- ‘আমি আপ্লুত।’

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন