সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

শিল্পসংস্কৃতির আর্শিবাদ, কোটচাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমি!

 Wed, Dec 7, 2016 2:27 PM
 শিল্পসংস্কৃতির আর্শিবাদ, কোটচাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমি!

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ: ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র মডেল স্কুল চত্বর থেকে ডুগি তবলা হারমোনিয়ামের তালে সুরের মূর্ছনায় গান ভেসে আসে বহুদুর অবধি। । ভেসে আসে কালীবাড়ীর নাটক মঞ্চ থেকে অভিনয় শিল্পিদের ডাইলগ।

কখনো সখনো ওখান থেকেই ভেসে আসে নিত্য শিল্পিদের পায়ের নপুরের ঝঙ্কার। সন্ধ্যা হলেই শহরবাসীর ব্যস্ততা বেড়ে যায়। গান অথবা নাটক মঞ্চে’র সামনের সারিতে বসার প্রতিযোগীতায়। রমরমা পরিবেশ মঞ্চস্থলসহ আশ পাশ এলাকা। বছর বিশ-পঁচিশেক আগের কথা বললাম। এখন আর শহরবাসীর সুরের আওয়াজ, ডাইলগ আর নাচের ঝঙ্কার কানে বাজেনা। এনিয়ে ব্যস্ততাও নেই। কেমন জানি সবাই যান্ত্রিক হয়ে গেছে। নেই হই হুল্লড়। মন মরা যেন উঠতি বয়সি কিশোর তরুন যুবকেরা।

খেলার মাঠ গুলি প্রতি নিয়ত স্বস্তির নিশ্বাস নিচ্ছে নিরভাবনায়। সেখানে খেলা প্রিয় মানুষের নেই দাপাদাপি। তাইতো নেই প্রতিযোগীতা মূলক খেলার ঢোল পিটিয়ে দর্শকের জানান দেয়ার তোড়জোড়। আজও সেই প্রাণচাঞ্চল্য “তরুণ সংঘ” ও “খেয়ালী নাট্য সংঘ” কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তবে নিঃসঙ্গ নিরবতায় কঙ্কালসার দালান হয়ে। এক সময় কোটচাঁদপুরের মানুষ ছিল সংস্কৃতিমনা। যা ঝিনাইদহ জেলাসহ আশপাশ জেলা গুলির মধ্যে স্বীকৃত। কোটচাঁদপুরের মাটিতে বেড়ে ওঠা দেশের সুনামধন্য কণ্ঠশিল্প, গীতিকার, নাট্যকার, ছড়াকার, কবি, সাহিত্যিক তারই প্রমাণ। সে মাটিতে দিনে দিনে ইটপাথরে নির্মিত চকচকা তকতকা বিল্ডিং গড়ে উঠছে ঠিকই। কিন্তুু শিল্প সংস্কৃতি’র সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়নি কখনো কেউ।

দীর্ঘদিন সংস্কৃতি অঙ্গনে পৃষ্ঠপোশকতা না থাকায় ধ্বংসের দার প্রান্তে দাড়িয়ে ছিলো এ অঙ্গন। যদিও ছড়াকার মিতুল সাইফসহ কয়েকজন যুবক মিতালী সাহিত্য সংসদ নামে একটি প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছিল স্বল্প পরিসরে। এ সংগঠনকে দিয়েই উপজেলা প্রশাসন দায়সারা গোচের চালিয়ে নিত সরকারী প্রোগাম। কিন্তু এ সংগঠনের দিকে কখনো সাহায্যের হাত বাড়ায়নি উপজেলা প্রশাসন। যে কারণে সম্ভাবনা থাকলেও পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় কোটচাঁদপুরের সংস্কৃতিমনা দীর্ঘ দিনের ঘুমন্ত মানুষগুলোর জাগরণ ঘটাতে পারেনি সংগঠনটি। যে কারণে সংস্কৃতিমনা মানুষই যেন ইটপাথরের মত রুক্ষ হতে শুরু করেছে দিনে দিনে। এমনি এক ক্লান্তি লগ্নে বর্তমান সরকারের নির্দেশনায় দেশের অন্যান্য জায়গার মত কোটচাঁদপুরে গড়ে উঠেছে “উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”। যেখান থেকে নতুন করে সংস্কৃতির গোড়া পত্তনসহ উদজীবিত হচ্ছে সংস্কৃতিমনা ঘুমন্ত মানুষ গুলো।

“কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”র সূচনার কথা বলতে বা লিখতে গেলে যার কথা মনে করিয়ে দেয়। তিনি আমাদের অতি শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিত্ব তিনি নিজেই একাধারে কণ্ঠশিল্পী ,সাহিত্যিক, কবি ও একজন সফল প্রশাসক। তিনি হচ্ছেন, কোটচাঁদপুরের সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পদাধিকার বলে “কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”র সভাপতি দেবপ্রসাদ পাল। এ সংস্কৃতিমনা মানুষটি একাডেমীকে দাঁড় করাতে কয়েক জনকে নিয়ে নির্বাহী কমিটি গঠন করলেও মুলতঃ তারই চালিকা শক্তিতে আজকের এ “কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”। যার প্রাথমিক পর্যায়ে কর্মকান্ড চলছে দেড়’শ শিক্ষার্থী  নিয়ে উপজেলা কোয়াটারের দু’টি রুমে ও অফিসার্স ক্লাবে।

এ সময় নির্বাহী কমিটি’র মধ্যে ক’জন শ্রদ্ধাভাজন দেবপ্রসাদ পালকে সাথে থেকে সহযোগিতা করেছেন বা এখনো করছেন তারা হলেন, কোটচাঁদপুর উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী’র সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার সাহা, শিক্ষক ইসাহাক আলী, শাহজাহান আলী, সাংবাদিক কাজী মৃদুল, শিল্পকলা একাডেমী’র বাদ্যযন্ত্র প্রশিক্ষক ও সংগঠক অঞ্জন মেহেদী। সহযোগী সদস্যদের মধ্যে ক্রীড় সংগঠক কামরুজ্জামান খান রতন, শিক্ষিকা রোজলিন আক্তার। পাশাপাশি যে সকল প্রশিক্ষকের অক্লান্ত পরিশ্রমে এ শিল্পকলা একাডেমী শিক্ষার্থীরা আজ ঈর্ষাণিয় ভাবে জাতীয় পর্যায়ে স্থান করে নিয়েছে সে সকল প্রশিক্ষকরা হচ্ছেন, প্রধান প্রশিক্ষক কণ্ঠশিল্পী, গীতিকার ও সুরকার ইউনুস আলী মোল্লা, উসমান গণি, শাহানা কবির লিকু, শাহীন ইসলাম, সেলিম রেজা ও প্রতিমা রাণী শর্মা।

সার্বিক তত্ববধায়কের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসের মুদ্রাক্ষক আব্দুস সেলিম। বর্তমানে শিল্পকলা একাডেমীর বয়স সবে ১ বছর মাত্র। ইতি মধ্যেই এখানে প্রায় দেড়শতাধীক শিক্ষার্থী তালিম নিচ্ছে। বদলীজনিত কারণে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও “কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”র সভাপতি দেবপ্রসাদ পাল অন্যত্রে চলে যান। সম্প্রতি “কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী”র অবিভাবকের হাল ধরেছেন বর্তমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও একাডেমীর সভাপতি শাম্মী ইসলাম। তিনি এখানে যোগদানের পর শিল্পকলা একাডেমী’র প্রশিক্ষক, শিক্ষার্থী কমিটি’র নেতৃবৃন্দের কর্মকান্ডে মুগ্ধ। যে কারণে তিনি মাতৃ¯েœহে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীকে আকড়ে ধরেছেন। এখন শিল্পকলা একাডেমী’কে নিজস্ব জায়গায় বসাতে আপ্রাণ চেষ্টার কমতি নেই এ মানুষটিরও।

ইতি মধ্যেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও একাডেমীর সভাপতি শাম্মী ইসলাম নিজের আওতাধীন জায়গার সংকুলন না হওয়ায় পৌর মেয়র জাহিদুল ইসলামের সাথে কথা বলেছেন। মেয়র মহোদয় এলাকার মানুষের শিল্পসংস্কৃতির স্বার্থে শিল্পকলা একাডেমী’র জন্য জমি প্রদানের আঙ্গিকার করেছেন। সকলেরই প্রচেষ্টায় এ ভাবেই গড়ে উঠুক আমাদের সভ্যতার নিদর্শন। হয়ে উঠুক “কোটচাঁদপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী” শিল্পসংস্কৃতির দুঃসময়ের আর্শিবাদ। আর এটাই হোক আমাদের সকলের প্রত্যাশা।


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন