সদ্য সংবাদ

 ডাক্তার -পুলিশের মাঠ পর্যায়ের বাস্তবতা  করোনা আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন অভিনেত্রী কবরী  আশা ও তামাশার লকডাউন  কত বছর করোনার সঙ্গে থাকতে হবে কেউ জানিনা- ডা ফাহিম  ডলারের লোভে দুই মেয়েই অপহরণ করেছিলেন ম্যারাডোনাকে!  জনবল নিয়োগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অবিশ্বাস্য দুর্নীতি, কঠোর শাস্তি চায় টিআইবি  অভিষেক 'উমরাও জান' ছবিতে ঐশ্বরিয়ার প্রেমে পড়েন।   ছাত্রলীগ নেতার জিন্স প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল   লকডাউনে পুলিশের কাছ থেকে ‘মুভমেন্ট পাস’ নিতে হবে।   নরেন্দ্র মোদির পরিকল্পনায় ৪ মুসলমানকে গুলি করে হত্যা-মমতা   এক সপ্তাহ সব ধরনের অফিস ও পরিবহন চলাচল বন্ধ থাকবে  র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হেফাজতের ৪ নেতা  আহমদ শফীর মৃত্যু: বাবুনগরীসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দিল পিবিআই  অপরিকল্পিত লকডাউন বিপজ্জনক পরিস্থিতির : রব  আড়াইহাজারে নবম শ্রেনীর ছাত্রীর ধর্ষক গ্রেফতার   নতুন নির্দেশনা, সাত দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক   অভিনেত্রী পায়েলের ওপর হামলা   বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের ডাক মির্জা ফখরুলের  নারায়ণগঞ্জ ডি‌বি পু‌লি‌শের সোর্স প‌রিচ‌য়ে বেপরোয়া সেই মোফাজ্জল ও মিশু চক্র   দেশে করোনায় ১৩ দিনে ৭৯২ জনের মৃত্যু

৩৭ লক্ষ টাকার প্রতারণার মামলায় আসামী সোনাক্ষী

 Tue, Nov 27, 2018 9:29 AM
৩৭ লক্ষ টাকার প্রতারণার মামলায় আসামী সোনাক্ষী

এশিয়া খবর ডেস্ক:: বলিউড অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা পড়লেন আইনি জটিলতায়। প্রতারণার দায়ে তার নামে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

৩৭ লক্ষ টাকার প্রতারনার করেছেন তিনি। টাকা নিয়ে অনুষ্ঠানে পারফর্ম  করতে আসেননি এ তারকা। এমন অভিযোগ তুলেই ভারতের মুরাদাবাদের প্রমোদ শর্মা অভিযোগ করেছেন থানায়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সোনাক্ষী সহ আরও সাত জনের নাম জড়িয়েছে।   


ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, এই বছর ৩০ সেপ্টেম্বর একটি ফ্যাশনর শো অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে বিশেষ অথিতি হিসেবে সোনাক্ষী সিনহাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সে সুবাধে একটি এন্টারটেনমেন্ট কোম্পানির মাধ্যমে অভিনেত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন প্রমোদ। সোনাক্ষীর পারিশ্রমিক ৩৭ লক্ষ টাকা আগেই দিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। এবং সোনাক্ষী অনুষ্ঠানে উপস্থিত না হওয়ায় অভিযোগ জানাতে বাধ্য হন। জানা যায়, বর্তমানে দিল্লি পুলিশ বিষটির তদন্ত করছে।




যদিও এই বিষয়ে সোনাক্ষী এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি। এদিকে গত বছর একই মামলায় ফেঁসেছিলেন বলিউডের আরেক অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুরও। তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করেছিল 'এম অ্যান্ড এম ডিজাইন' নামে একটি ফ্যাশন হাউজ। 


'হাসিনা পার্কার' ছবিতে শ্রদ্ধার সব পোশাক সরবরাহ করেছিল এই প্রতিষ্ঠান। চুক্তি ছিল, প্রতিষ্ঠানটির নাম ট্রেলার, ছবি এবং সব ধরনের প্রচারণায় ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, প্রযোজক এবং নায়িকা শ্রদ্ধা কাপুর কেউই চুক্তি অনুযায়ী কাজ করেননি বলে অভিযোগ করেছিল 'এম অ্যান্ড এম ডিজাইন' ফ্যাশন হাউজ। চুক্তিভঙ্গের কারণে দারুণ মর্মাহত হয়েছিলেন প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ কর্মকর্তারা। তাই 'হাসিনা পার্কার' মুক্তির আগে তারা অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুরের নামে মামলা করেছিলেন।


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন