সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

ইন্দোনেশিয়ায় তালাবদ্ধ দোকান থেকে ১৯৩ বাংলাদেশি উদ্ধার

 Thu, Feb 7, 2019 9:04 PM
ইন্দোনেশিয়ায় তালাবদ্ধ দোকান থেকে ১৯৩ বাংলাদেশি উদ্ধার

নিউজ ডেস্ক:: ইন্দোনেশিয়ার একটি তালাবদ্ধ দোকানঘর থেকে ১৯৩ বাংলাদেশিকে উদ্ধার করেছে দেশটির পুলিশ।

মালয়েশিয়ায় নিয়ে যাওয়ার প্রলোভনে তাদের সেখানে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখা হয় বলে অভিবাসন কর্মকর্তার বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।


কাজের জন্য মালয়েশিয়ায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে পর্যটন ভিসায় বালি ও ইওগেকার্তা শহর হয়ে তারা ইন্দোনেশিয়ায় ঢুকেছেন।


ইন্দোনেশিয়ার উত্তর সুমাত্রার অভিবাসন প্রধান ফেরি মেনাং সিহিত বলেন, এসব বাংলাদেশি মানবপাচারের শিকার হয়েছেন। মালয়েশিয়ায় নিয়ে গিয়ে ভালো কাজের সুযোগ দেয়ার লোভের ফাঁদে ফেলে তাদের এখানে নিয়ে আসা হয়েছে। সুমাত্রা দ্বীপের মেদানে তারা তালাবদ্ধ অবস্থায় ছিলেন।


বুধবার রাতে যখন তাদের উদ্ধার করা হয়, তখন সবাই সুস্থ ছিলেন। এরপর তাদের অভিবাসী আটক কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এখন তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো প্রক্রিয়া চলছে।


আটকদের একজন ৩৯ বছর বয়সী মাহবুব বলেন, গত তিন মাস ধরে তাদের কয়েকজনকে এভাবে আটকে রাখা হয়েছিল। সবাই প্রতারিত হয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।


মাহবুব বলেন, আমাদের মালয়েশিয়ায় যাওয়ার কথা ছিল। এজন্যই আমরা বালির উদ্দেশে বাংলাদেশ ছেড়েছিলাম। এরপর চারদিনের বাস সফর শেষে এখানে পৌঁছাই।


স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ভবনের ভেতর থেকে সন্দেহজনক শোরগোলের খবর পাওয়ার পর স্থানীয়রা কর্তৃপক্ষকে খবর দেন।


উদ্ধার হওয়ার এসব লোকজন রোহিঙ্গা নন বলে জানিয়েছেন মেনাং সিহিত।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন