সদ্য সংবাদ

  করোনায় পুলিশের ‘বীরত্বগাঁথা’ নিয়ে বই  মিয়ানমার থেকে এলো ২০ টন পেঁয়াজ  আড়াইহাজারে গাঁজার চাষ, দুই সহোদর আটক  এই সরকারকে সরাতে হবে: মির্জা ফখরুল   ইউএনও ওয়াহিদাকে ওএসডি, স্বামীকে বদলি   মসজিদে বিস্ফোরণ: তিতাসের চার প্রকৌশলীসহ ৮ জন রিমান্ডে  বিশ্বে ভয়ংকর দুর্ভিক্ষ আসছে, ক্ষুধায় মরবে ৩ কোটি মানুষ!  আল্লামা শফীর জানাজায় জনতার ঢল, লাখো মানুষের চোখে পানি  মসজিদ বিস্ফোরণে ঘটনায় তিতাসের ৮ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।  ইউএনও ওয়াহিদার বাসায় টাকা ছিল ৪০ লাখ, সেই মালি নেয় ৫০ হাজার   ‘তিশা প্লাস’ বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে গণধর্ষণ  'ঊর্মিলাকে পর্ন অভিনেত্রী' বললেন কঙ্গনা  যে যাই বলুক, আসলে মানুষ‌‌ পুলিশকে ভালোবাসে   আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে কাজ করবেন, সরকারি কর্মচারীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী  ট্রাম্পের নারী কেলেংকারি ফাঁস, মুখ খুললেন মডেল  দেশের অর্থনীতি ধ্বংস করার চেষ্টা করছে ভারত : জাফরুল্লাহ  তিতাস-ডিপিডিসি ও মসজিদ কমিটি দায়ী: প্রশাসনের তদন্ত প্রতিবেদন  তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কে সীমাহীন র্দূভোগ:দেখার কেউ নেই   মসজিদে অগ্নিকাণ্ডে নিহত পরিবারের মাঝে জেলা আ:লীগের আর্থিক সহায়তা প্রদান   ধর্ষণ মামলায় শিল্পপতি ছেলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেন আর নেই

 Wed, May 22, 2019 10:57 PM
    সংগীতশিল্পী খালিদ হোসেন আর নেই

এশিয়া খবর ডেস্ক:: প্রখ্যাত নজরুল সংগীতশিল্পী একুশে পদকপ্রাপ্ত খালিদ হোসেন আর নেই।

বেশ কিছুদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর বুধবার রাত ১০.১৫ মিনিটে ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)। বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন তার ছেলে আসিফ হোসেন।

রাজধানীর জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন শিল্পী খালিদ হোসেন।

ডা. উত্তম বড়ুয়ার অধীনে হাসপাতালটির করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়।

হৃদরোগের পাশাপাশি কিডনি রোগসহ নানা জটিলতায় ভুগছিলেন এ গুণী শিল্পী।

এর আগে গত ১৪ মে (মঙ্গলবার) হাসপাতালে ভর্তি হন খালিদ হোসেন।

এদিন শিল্পীর পুত্রবধূ সুমি বলেন, উনার শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। চিকিৎসকরা বলেছেন, যে কোনো সময় দুঃসংবাদ আসতে পারে। আমাদের মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে।

খালিদ হোসেনের ছাত্র পরদেশী সিদ্দিক বলেন, কিছু দিন আগে স্যার ভারত থেকে চিকিৎসা নিয়ে ফিরেছেন। দেশে ফেরার সময় ভারতের চিকিৎসকরা বলেছিলেন- তার শারীরিক অবস্থা আরও খারাপের দিকে যাবে। হচ্ছেও তাই।

তিনি বলেন, উনাকে প্রতি মাসে একটি করে ব্যয়বহুল ইনজেকশন দেয়া হচ্ছিল। এখন সেটিও স্যারের শরীর সহ্য করতে পারছে না। ফলে তিনি আরও দুর্বল হয়ে পড়েছেন।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন