সদ্য সংবাদ

 সরকার ইভিএমের ওপর ভর করেছে: মির্জা ফখরুল  নায়িকা দেখতে পাঁচ রাত ফুটপাতে কাটালেন এক ভক্ত   রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যা করা হয়েছে তা গণহত্যার শামিল: আইসিজে   দেশকে সন্ত্রাস-দুর্নীতিমুক্ত করতে চাই: প্রধানমন্ত্রী  বাসাবাড়ির চুলায় নয়, শিল্পে গ্যাস দেব: সংসদে প্রতিমন্ত্রী  মেহেরপুরে ফেনসিডিল রাখার দায়ে যুবকের জেল  মেহেরপুর শ্মশানঘাট মন্দিরে ৩ দিনব্যাপী কালী পূজা  ডুমুরিয়ায় এমপি পুত্রের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন  কালিয়াকৈরে তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীদের কর্মবিরতি  রংপুরে নিবন্ধনকৃত শিশুদের মাঝে স্কুল ব্যাগ বিতরণ  পলাশে শিক্ষার্থীদের মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে অভিভাবকদের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত  পঞ্চগড়ে কালেক্টরেট সহকারী সমিতি’র উদ্যোগে কর্মবিরতি ও সমাবেশ  কালিয়াকৈরে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত  পার্বতীপুরে পল্লীশ্রী’র অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত  রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের নির্মাণ কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে  বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের গিবসন  সিদ্ধিরগঞ্জে হত্যা মামলার পলাতক আসামি শরীফ গ্রেফতার  বিমানে লাগেজ হারালে বা নষ্ট হলে কেজি প্রতি লক্ষাধিক টাকা ক্ষতিপূরণ  ৯ লাখ নারী কর্মী বিদেশে গেছেন: প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী  ফতুল্লায় ধর্ষককে ছেড়ে দেওয়া যুবলীগ নেতা শ্যামল গ্রেফতার

আদালতের কাঠগড়ায় পাথরের মতো বসে ছিলেন সু চি

 Tue, Dec 10, 2019 9:40 PM
আদালতের কাঠগড়ায় পাথরের মতো বসে ছিলেন সু চি

এশিয়া খবর ডেস্ক:: রোহিঙ্গা মুসলিম সংখ্যালঘুদের ওপর সেনাবাহিনীর গণহত্যা নিয়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে

গাম্বিয়ার করা মামলাটির শুনানির সময় অনেকটাই নির্বাক ছিলেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি।

বিবিসি জানিয়েছে, শুনানির প্রথম দিনে যখন রোহিঙ্গাদের ওপর সে দেশের সামরিক বাহিনীর একের পর এক নৃশংসতার ঘটনা তুলে ধরা হচ্ছিল তখন সেখানে পাথরের মত মুখ করে বসে ছিলেন নোবেল শান্তি পুরষ্কার বিজয়ী অং সান সু চি। মিয়ানমারের পক্ষ থেকে এ মামলায় নিজেই লড়ছেন তিনি।

মঙ্গলবার মামলার বিচারের শুনানির শুরুতে রোহিঙ্গা মুসলমানদের প্রতি গণহত্যা বন্ধে মিয়ানমারকে নির্দেশ দিতে জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে গাম্বিয়া।

রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর গণহত্যার মামলায় দেশের হয়ে লড়তে এদিন আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে এসে হাজির হন মিয়ানমারের কার্যত নেতা ও শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সুচি।

তিনি যখন নেদারল্যান্ডের দ্য হেগ শহরে আসেন, তখন দেশে তার পক্ষে হাজার হাজার লোক মিছিল নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন।

শুনানির প্রথম দিনে গাম্বিয়ার বিচারবিষয়ক মন্ত্রী আবুবাকর তামবাদু বলেন, সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর মিয়ানমারকে এই নির্মম হত্যাকাণ্ড বন্ধ করতে হবে। তাদেরকে এই বর্বরতা ও হিংস্রতা বন্ধ করতে হবে, যা আমাদের সবার বিবেককে ব্যথিত ও ব্যথাহত করে যাচ্ছে। দেশটিকে নিজের নাগরিকদের বিরুদ্ধে এই গণহত্যা বন্ধ করতে হবে।

প্রতিনিধিদলের নেতা হিসেবে সু চি যুক্তি দেখাবেন যে এই বিষয়ে বিচার করার অধিকার আইসিজের নেই।

এদিকে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে করা অপরাধের ব্যাপারে প্রকাশ্যে স্বীকার করার জন্য মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিশ্বের ৭ নোবেলজয়ী। একইসঙ্গে এই গণহত্যার জন্য সু চি ও মিয়ানমারের সেনা কমান্ডারদের জবাবদিহিতার আহ্বানও জানান তারা।

মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতিতে এই আহ্বান জানানো হয়।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন, শান্তিতে নোবেলজয়ী ইরানের শিরিন ইবাদি, লাইবেরিয়ার লেমাহ গবোই, ইয়েমেনের তাওয়াক্কুল কার্মান, উত্তর আয়ারল্যান্ডের মাইরেড মাগুয়ের, গুয়েতেমালার রিগোবার্টা মেনচ তুম, যুক্তরাষ্ট্রের জোডি উইলিয়ামস ও ভারতের কৈলাশ সত্যার্থী।

বিবৃতিতে নোবেল বিজয়ীরা বলেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত হওয়া গণহত্যাসহ অপরাধগুলো প্রকাশ্যে স্বীকার করার জন্য শান্তিতে নোবেল বিজয়ী হিসেবে আমরা অং সান সু চির প্রতি আহ্বান জানাই। আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন যে, এই নৃশসংসতায় নিন্দা জানানোর পরিবর্তে সেটা অস্বীকার করেছেন সুচি।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন