সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

শহীদ সোলাইমানি হত্যার বদলা ধাপে ধাপে: ইরানি কমান্ডার

 Mon, Jan 6, 2020 9:56 PM
শহীদ সোলাইমানি হত্যার বদলা ধাপে ধাপে: ইরানি কমান্ডার

এশিয়া খবর ডেস্ক:: ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ ধাপে ধাপে নেয়া হবে বলে হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

আল-কুদস ফোর্সের নতুন প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইসমাইল কিয়ানি বলেন, শহীদ সোলাইমানির বদলা নেয়া আল্লাহর দেয়া প্রতিশ্রুতি। কারণ, আল্লাহ স্বয়ং পরাক্রমশালী প্রতিশোধ গ্রহণকারী।

তিনি আরো বলেন, আমরা শহীদ সোলাইমারি পথ সেই একই শক্তি ও উদ্যম নিয়ে অনুসরণ করে যাওয়ার সংকল্প নিয়েছি। যুক্তরাষ্ট্রকে এ অঞ্চল থেকে তাড়ানোর মধ্য দিয়ে কয়েক ধাপে আমরা তার সেই শহীদানের প্রতিশোধ নেব।

সোমবার তেহরানে সোলাইমানির জানাজায় বিপুল মানুষের উপস্থিতি এবং ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ স্লোগানের মধ্যে ইসমাইল কিয়ানি নতুন করে বদলা নেয়ার ওই অঙ্গীকার করেন।

তেহরানে নিহত কাসেম সোলাইমানির জানাজায় প্রকাশ্যে কাঁদলেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। তার কফিনের সামনে দাঁড়িয়ে যখন কোরআন তেলাওয়াত করছিলেন, তখন নিজের আবেগ ধরে রাখতে পারছিলেন না। তার কণ্ঠের আওয়াজ ভেঙে ভেঙে যাচ্ছিল।

সোমবার লাখ লাখ শোকার্ত মানুষ রাস্তায় নেমে আসলে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়ক স্তব্ধ হয়ে যায়। পরে শোকমিছিল আজাদী চত্বরের দিকে চলে যায়।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বলছে, ইরানের রাজধানীর সড়কগুলোতে মানুষের ঢল নেমেছে। ইসলামিক প্রজাতন্ত্রটির প্রতিষ্ঠাতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনির পরে এমন মানুষের ভিড় আর কারো জানাজায় দেখা যায়নি।

লাউডস্পিকারে যখন দোয়া-কালাম ভেসে আসছিল, তখন এক বৃদ্ধ লোক বলছিলেন, বহু দেশ তার অস্তিত্বের কাছে ঋণী। তিনি না থাকলে সিরিয়া, ইরান ও ইরাকের পতন ঘটতো।

প্ল্যাকার্ড হাতে আরেক লোককে সামনে এগিয়ে যেতে দেখা গেছে। তাতে লেখা রয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার কথা যে জিহ্বা বলছে, সেটা নীরব থাকুক।

মাতমরত নারীরা বলেন, কোনো মধ্যস্থতা না, কোনো আত্মসমর্পণ না। এসময় উর্দিপরিহিত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও গোয়েন্দারা ভিড়ের মধ্য দিয়ে পথ করে সামনে এগিয়ে যাচ্ছিলেন।

আল-কুদস ফোর্সের এই কমান্ডারের মেয়ে জয়নাব সোলাইমানি বলেন, আমেরিকা ও ইহুদিবাদীদের জানা উচিত যে আমার বাবার শাহাদত নতুন জাগরণের নেতৃত্ব দেবে— সম্মুখের প্রতিরোধে। তাদের জন্য নতুন অন্ধকারময় দিন নেমে আসবে। তাদের বাড়িঘর মাটিতে মিশে যাবে।

‘উন্মুক্ত ট্রাম্প চিন্তাও করতে পারবেন না যে আমার বাবার শাহাদতে সবকিছু শেষ হয়েছে,’ বললেন সোলাইমানি কন্যা।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন