সদ্য সংবাদ

 হেলিকপ্টারে চড়া মানবপাচারকারী কেসমত ধরা খেলেন!  ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে ট্রাম্পের নৈশভোজে শুয়োরের মাংস   পাপিয়ার পাপের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী জানতেন: ওবায়দুল কাদের  লুট হওয়া বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার, ছাত্রলীগ নেতসহ গ্রেফতার ৩   নবীনগরে মাদ্রাসার ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, অধ্যক্ষসহ চার শিক্ষক গ্রেফতার   অনেকেই ব্যাংক করেন জনগণের টাকা লুটের জন্য: অ্যাটর্নি জেনারেল   মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মুবারাকের জীবন-কর্ম   দুদকের প্রতি আস্থাহীনতা, ১৬ দফা সুপারিশ টিআইবির  এমন বন্ধু মোদি আর কাউ‌কে পা‌বেন না -ট্রাম্প  কসবায় দু’দিন ব্যাপী শিশুমেলা অনুষ্ঠিত  কালিয়াকৈরে লিজ বাতিলের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন  রংপুরের চন্দনপাটে মাদ্রাসা ও এতিমখানায় ওয়াশব্লক উদ্বোধন   নতুন করে আরেকটি বাবরি মসজিদ নির্মাণ হবে।  ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনেও ইসি ব্যর্থ: সুজন  বঙ্গবন্ধুর সব ভাষণ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্পাদিত বই   ৫ কারণে নায়ক সালমান শাহর ‘আত্মহত্যা’: পিবিআই   কুমিল্লায় শাড়ি ভাঁজে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা  পদত্যাগের পর মাহাথির কেন অন্তর্বর্তী প্রধানমন্ত্রী?  ব্লাকমেইল করে ৫ বছরে শত কোটি টাকার মালিক পাপিয়া দম্পতি!  প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সফরেই দিল্লি রণক্ষেত্র, নিহত পুলিশ কর্মকর্তা

মারা যেতে পারে সাড়ে ছয় কোটি মানুষ করোনা ভাইরাসে

 Sat, Jan 25, 2020 10:50 PM
মারা যেতে পারে সাড়ে ছয় কোটি মানুষ করোনা ভাইরাসে

এশিয়া খবর ডেস্ক:: করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর পরবর্তী ১৮ মাসের মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন

প্রান্তে সাড়ে ছয় কোটি মানুষ উজাড় হয়ে যাবে বলে সতর্ক করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার অন্তত তিন মাস আগেই এ ব্যাপারে সতর্কতা জারি করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

তারা ভবিষ্যদ্বাণী করে জানিয়েছিলেন, নতুন এক ধরনের করোনা ভাইরাসে লাখ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে। করোনা ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে আতঙ্কের মধ্যে শনিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে ডেইলি মেইল।

গত বছরের অক্টোবর মাসে একটা গুরুত্বপূর্ণ গবেষণার অংশ হিসেবে এমনটাই ধারণা করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিখ্যাত গবেষণা কেন্দ্র জন হপকিন্স সেন্টার ফর হেলথ সিকিউরিটি।

মার্কিন বিশেষজ্ঞদের সতর্কতার মাত্র তিন মাস পরই (এখন থেকে মাসখানেক আগে) গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশের তিন হাজার বয়সী শহর উহানে প্রথম করোনা ভাইরাসের প্রকোপ শুরু হয়। সেখানে বন্যপ্রাণী কেনাবেচার একটি অবৈধ বাজার থেকে রোগ ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হয়।

এরপরই নিউমোনিয়া সদৃশ এ প্রাণঘাতী ভাইরাস দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। ছড়িয়ে পড়ে চীনের বাইরেও। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পর ইউরোপ-আমেরিকা এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার নেপালেও ভাইরাসটিতে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে। মহামারী ঠেকাতে বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের তুমুল লড়াইয়ের মধ্যে চীনসহ ১২ দেশে নতুন এ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ৩০০ ছাড়িয়ে গেছে।

চীনা কর্তৃপক্ষের দাবি অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত অতি সংক্রামক ভাইরাসটি চীনের ৪১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। নতুন আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার দুইশ’র বেশি। তবে ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞদের মতে, আক্রান্তের সংখ্যা হাজার হাজার।

জন হপকিন্স সেন্টারের সিনিয়র গবেষক ড. এরিক টোনার বিজনেস ইনসাইডারকে বলেছেন, ডিসেম্বরের শেষে ভাইরাসটি চীনে ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়ার পরও তিনি মোটেই অবাক হননি।

তিনি বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরেই মনে হয়েছে, নতুন একটা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। আর সেটা হবে একটা করোনাভাইরাস।’ তিনি আরও বলেন, ‘তবে এখনও জানি না কতটা সংক্রামক এ ভাইরাসটি। আমরা জানি, এটা একজন থেকে আরেকজনে ছড়ায়। তবে তার বিস্তার কতটুকু তা জানি না।’

এরিক টোনার আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, এটা সার্স ভাইরাসের চেয়ে কিছুটা নমনীয়। সেটাই ভরসার জায়গা। অন্যদিকে এটা সার্সের চেয়েও বেশি সংক্রামক হতে পারে। অন্তত স্থানীয় জনপরিসরে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন