সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

ঝিনাইদহে স্বাধীন কৃষক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন

 Mon, Jan 27, 2020 12:00 AM
ঝিনাইদহে স্বাধীন কৃষক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ: ঝিনাইদহে স্বাধীন কৃষক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন হয়েছে।

 এ উপলক্ষ্যে রবিবার দুপুরে জেলার শৈলকুপা উপজেলার হাটফাজিলপুর বাজারে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে স্বাধীন কৃষক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি খুরশিদ আলম রুবায়েত’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উন্নয়ন ধারার নির্বাহী পরিচালক ডা: মশিউর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন শৈলকুপা উপজেলার আবাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন বিশ্বাস, স্বাধীন কৃষক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোবারেক হোসেন মৃধা, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক নুরুল ইসলাম, উন্নয়ন ধাারার পিএফএসএসএ প্রকল্প সমন্বয়কারী কৃষিবিদ রুবেল আলী, কৃষ্ণ দাস সাহা, হাটফাজিলপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হালিম মোল্লা প্রমুখ। এছাড়া অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীন কৃষক সংগঠনের ইউনিয়ন, গ্রাম পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এবং অত্র এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
দেশের মোট কৃষকের মধ্যে ভূমিহীন, প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষকের সংখ্যা ৮৭%, যার প্রায় ৫৩% কৃষকই ভূমিহীন। অথচ জমির পরিমাণ বিবেচনায় মাঝারি ও বড় কৃষকের সংখ্যা মাত্র ১৩% হলেও মোট জমির প্রায় ৫৯% তাদের দখলে এবং এদের অধিকাংশেরই আবার কৃষি উৎপাদনের সাথে সরাসরি কোন সম্পর্ক নেই। বাংলাদেশের ক্রমাগত বাড়তি জনসংখ্যার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ষাটের দশকে আধুনিক কৃষি ব্যবস্থার প্রবর্তন করা হয়। যে কারণে রাসায়নিক সার-কীটনাশক, বীজ, জ্বালানী, সেচযন্ত্র ইত্যাদি কৃষি উপকরণের বাজার নির্ভরতা সৃষ্টি হয়। বর্তমানে ফসল চাষে সেচের পরিমাণ ও মূল্য, সার-কীটনাশকের ব্যবহার মাত্রা ও মূল্য দু’ই প্রতি বছর বাড়ছে এবং ফসলের ফলনহার ক্রমাগত কমে যাচ্ছে। অথচ ফসল উৎপাদন খরচের তুলনায় ফসলের বাজার মূল্য কম পাওয়ায় কৃষক লোকসানের শিকার হচ্ছে। প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষক জমি হারিয়ে নিঃস্ব-ভূমিহীনে পরিণত হচ্ছে এবং লোকসানীর নামে কৃষিশিল্প কারখানা বন্ধ করে দেওয়ায় অর্থকরী ফসলের চাহিদা কমে যাচ্ছে ও অর্থকরী ফসল উৎপাদন অলাভজনক হয়ে পড়ছে। অর্থাৎ কৃষক-বান্ধব কৃষি ব্যবস্থা উন্নয়নে সংকট এবং বহুজাতিক কোম্পানির কৃষি উপকরণ বাণিজ্যের শিকারে পরিণত হওয়ায় কৃষি ব্যবস্থা ও কৃষক সমাজ সমূহ সংকটের মুখে পড়েছে।
বাংলাদেশে কৃষক সংগঠনের নামে বহু-বিভক্ত যেসব সংগঠনের অস্তিত্ব আছে সেগুলো বিভিন্ন রাজনৈতিক দল-উপদলের অঙ্গসংগঠন ও উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য সাধনের সংগঠনে পরিণত হয়েছে ও সে নির্দেশনার বাইরে সাংগঠনিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে কৃষকের স্বাধীন ভূমিকার কোন সুযোগ নেই। এই ভয়াবহ সংকট ও বিপন্নতা থেকে মুক্তি, কৃষি সংস্কার ও কৃষি পরিবেশ উন্নয়ন এবং আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় বিভিন্ন দল-উপদল ও মতবাদে বিভক্ত কৃষক এবং কৃষিসম্পর্কিত পেশাজীবী সকল নারী-পুরুষের একটি সার্বভৌম সংগঠন ও দক্ষ নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রায় এক যুগ ধরে এ “স্বাধীন কৃষক সংগঠন” বিভিন্ কর্মকা-ের মাধ্যমে তাদের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের এ কার্যক্রমকে সাবলীলভাবে চালিয়ে যাওয়ার জন্য এ কার্যালয় প্রতিষ্ঠা সহায়ক ভুমিকা পালন করবে।



Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন