সদ্য সংবাদ

 কালকিনিতে ১৩১ বাড়িতে লাল নিশানা লাগিয়ে দিলো প্রশাসন  করোনার বিরুদ্ধে সাইফুল ইসলাম শান্তির অভিযান শুরু  রংপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টিনে ২০৫ প্রবাসী  কালকিনির বিভিন্ন হাট-বাজারে হাতধোয়ার জন্য বেসিন স্থাপন  পঞ্চগড়ে সাড়ে ৭শ’ পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ  রংপুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ  পার্বতীপুরে শুধুমাত্র পূজার মধ্যদিয়ে ঐতিহ্যবাহী ‘বাহা পরব’ উদযাপিত  রংপুরে এরশাদের জন্মদিন পালিত  বিএফআরআইতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং জাতীয় শিশু দিবস পালিত  করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পঞ্চগড়ে জরুরি বৈঠক  আতঙ্কিত না হয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে : সাদ এরশাদ এমপি  কালকিনিতে দুই প্রবাসীকে আর্থিক জরিমানা  পঞ্চগড়ে সীমিত পরিসরে মুজিববর্ষ পালিত  রংপুরে ৮টি রাস্তা পাকাকরণ ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু  কালকিনিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে মুজিব উতসব পালিত  কালিয়াকৈর প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  রংপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী পালিত  পঞ্চগড়ে কীটনাশক মুক্ত সবজির চাষ!

পেঁয়াজের কেজি ২৫ টাকা!

 Sat, Feb 29, 2020 10:30 PM
 পেঁয়াজের কেজি ২৫ টাকা!

নাটোর প্রতিনিধি:: হঠাৎ করেই নাটোরের নলডাঙ্গা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে।

 এক সপ্তাহ আগে কেজি প্রতি ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া পেঁয়াজ এখন অর্ধেক দরে নেমে এসেছে। ভারত পেঁয়াজ রপ্তানির ঘোষণা দেওয়ায় দামের এমন পতন বলে মনে করছেন চাষী ও ব্যবসায়ীরা। দাম কমায় ভোক্তাদের মধ্যে স্বস্তি ফিরলেও দরপতনে হতাশ পেঁয়াজ চাষীরা।

শনিবার নলডাঙ্গা হাটে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়। তবে শহরের বাজারগুলোতে খুচরা বিক্রেতারা প্রতি কেজি ৬০ টাকা দরে  বিক্রি করেছেন।

জানা যায়, শনিবার নলডাঙ্গা হাটে পেঁয়াজ পাইকারী প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকা আর খুচরা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। গত মঙ্গলবার হাটে প্রতি কেজি পেঁয়াজ খুচরা বিক্রি হয় ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে।

পেঁয়াজ বিক্রেতা আলী আক্কাস বলেন, ধারণা ছিল ভারত থেকে আমদানীর সিদ্ধান্তে পেঁয়াজের দাম সর্বোচ্চ ১৫ থেকে ২০ টাকা কমতে পারে। দাম এতটা পড়ে যাবে ভাবিনি। জানলে হাটে পেঁয়াজ উঠাতাম না।

শরিফুল ইসলাম নামের অপর এক ব্যবসায়ী বলেন, গত কয়েক বছর পেঁয়াজে ক্রমাগত লোকসান বহন করতে হয়েছে। গত বছর ভরা মৌসুমে ৫ টাকা কেজি পেঁয়াাজ বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছিলাম। এবার ভেবেছিলাম সেই ক্ষতিটা পুষিয়ে নিতে পারব। কিন্তু বড় দরপতনে আর সেটি সম্ভব হবে না।

বশির উদ্দিন নামের এক পেঁয়াজ চাষী জানান, এবার পেঁয়াজের বীজ কিনতে ৭ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়েছে। তাছাড়া কন্দ পেঁয়াজ উৎপাদনে খরচ অনেক বেশি পড়েছে। সেই তুলনায় দাম কেজিতে অন্তত ৫০ থেকে ৬০ টাকার মধ্যে থাকলে কৃষক লাভবান হতো।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন