সদ্য সংবাদ

  করোনা পরীক্ষার সিরিয়াল পেলেন দেড় মাস পর!  গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধির সুপারিশ অগ্রহণযোগ্য : ক্যাব  কোয়ারেনটাইনে নায়িকা রাধিকা   করোনা: সরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য ১ সরকারি প্রতিষ্ঠানের জ৮ স্বাস্থ্যবিধি নির্দেশনা   করোনা আক্রান্ত ৩০ ভাগ রোগীর চিকিৎসা দিতে পারছে না সরকার: রিজভী  করোনা মোকাবেলায়: বাংলাদেশকে ৭৩২ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে আইএমএফ   ৬১ লাশ দাফনের পর করোনায় আক্রান্ত নারায়ণগঞ্জের ‘বীর’ কাউন্সিলর খোরশেদ  ইসরাইলি বাহিনীর হাতে আটক আল-আকসা মসজিদের গ্র্যান্ড ইমাম   দেশের এই ক্রান্তিকালে স্বেচ্ছাচারিতা গভীর উদ্বেগজনক: টিআইবি   সিদ্ধিরগঞ্জের বোমা ও ইয়াবাসহ নাদিরা গ্রেপ্তার   পঞ্চগড়ের দুগ্ধ খামারিদের করুণ দশা   ঝিনাইদহ করোনা উপসর্গ নিয়ে ঢাকা ফেরত যুবকের মৃত্যু!   ৩১ মে ফেসবুক লাইভে এসএসসির ফল জানাবেন শিক্ষামন্ত্রী  বাস চলাচলে সরকারের ১২ শর্ত   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যার বিচার চায় বাংলাদেশ   পঞ্চগড়ে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে ১০ জন সুস্থ হয়েছেন   ঝিনাইদহে ঘুর্ণিঝড় আম্পানে ২ লাখ ২৭ হাজার চাষী ক্ষতিগ্রস্থ!  শৈলকুপায় লিচু বাগান রক্ষায় কারেন্ট জালের ফাঁদ   করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের নতুন রেকর্ড ২৫২৩ জন , মৃত্যু ২৩   সিদ্ধিরগঞ্জ রসুলবাগে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৩ জনের মৃত্যু, আহত ৫

গ্রিস সীমান্তে অভিবাসীদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ

 Sat, Mar 7, 2020 10:08 PM
 গ্রিস সীমান্তে অভিবাসীদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ

এশিয়া খবর ডেস্ক:: ইউরোপ অভিমুখী হাজার হাজার শরণার্থীর প্রবেশ ঠেকাতে

 টিয়ার গ্যাস ও রাবার বুলেট ছুড়ছে গ্রিক পুলিশ। গত কয়েক দিনের মতো শনিবারও গ্রিস সীমান্তে শরণার্থীদের জড়ো হতে দেখা গেছে।

আল জাজিরা জানিয়েছে, গ্রিক-তুর্কি সীমান্ত দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টাকালে যাওয়ার জায়গা না পেয়ে নো ম্যান্স ল্যান্ডের মাঝে সীমাহীন দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে অভিবাসনপ্রত্যাশীরা।

তুর্কি গণমাধ্যম ইয়েনি শাফাক জানায়, গ্রিক বাহিনীর হামলার পর তুরস্ক ও গ্রিসের সীমান্ত ফটকের মধ্যে নিরাপদ এলাকায় আহতরা হাসপাতালে ভর্তি হন। ইউরোপের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অনিয়মিত অভিবাসীদের সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি রাখতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। তুরস্ক তার নীতি থেকে সরে শরণার্থীদের ইউরোপে ঢোকার অনুমতি নিয়েছে।

তুরস্কের সীমান্ত উন্মুক্ত করে দেয়ার পর এ পর্যন্ত ১ লাখ ৩০ হাজারের বেশি শরণার্থী সীমান্ত অতিক্রম করে ইউরোপে ঢুকেছে।

শরণার্থী সংকট নিয়ে ২০১৫ সালের চুক্তির প্রতিশ্রুতি স্বয়ংসম্পূর্ণ না করার অভিযোগ তোলা হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিরুদ্ধে। অনিয়মিত ও আশ্রয় চাওয়া শরণার্থীদের সঙ্গে গ্রিসের প্রতিক্রিয়া অতি কঠোর বলে দাবি করা হচ্ছে।

বলা হচ্ছে, শরণার্থীদের ওপর হামলা, টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপসহ গ্রিক নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে অন্তত দুই শরণার্থী নিহত হয়েছে।

২০১৬ সালের তুর্কি এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের চুক্তির বাস্তবায়ন আর হবে না, এমনটাই ঘোষণা করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। এই চুক্তি মূলত শরণার্থীরা যাতে তুরস্ক হয়ে ইউরোপে না যেতে পারে সেইদিকে নজর দেয়ার জন্যই এই চুক্তি হয়েছিল। ঠিক এই ঘোষণার পরেই গ্রিস সীমান্তে অভিবাসীদের ভিড় বেড়েছে।

হাজারও অভিবাসীকে আটকাতে সীমান্তে গ্রিক পুলিশ টিয়ার গ্যাস ব্যবহার করেছে, পরিস্থিতি সামলাতে গ্রিসের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সীমান্ত সংস্থা ফ্রন্টেক্সের জরুরি সাহায্য চেয়েছে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান হুশিয়ারি দিয়েছেন যে, তার দেশে যদি নতুন করে সিরিয়ান শরণার্থীদের ঢল নামে, সেটা তারা সামলাতে পারবেন না।

ইতিমধ্যেই প্রায় ১০ লাখ সিরিয়ান ইদলিব থেকে তুরস্ক সীমান্তে পালিয়ে এসেছে। ইদলিবে তুরস্ক সমর্থিত সিরিয়ান বিদ্রোহীদের সঙ্গে সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর তীব্র লড়াই চলছে।

তুরস্কে সিরিয়ান শরণার্থীর সংখ্যা প্রায় ৩৭ লাখ। আফগানিস্তানসহ অন্যান্য দেশ থেকে আসা অনেক অভিবাসীও রয়েছে তুরস্কে। এই অভিবাসীরা ইউরোপে যেতে চায়। কিন্তু তুরস্ক এতদিন পর্যন্ত তাদের ঠেকিয়ে রেখেছে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন