সদ্য সংবাদ

 সারাদেশে করোনায় আক্রান্ত ১১৩০২ পুলিশ সদস্য   দেবীগঞ্জে ভারি বর্ষণ পানি তোড়ে ভেসে গেছে সড়ক  পুরনো এক্স-রে মেশিনে নতুন রঙ: দুর্নীতি ধরলেন সংসদ সদস্য  নবীনগরে চাচাতো ভাইয়ের ঘুষির আঘাতে বড় ভাই নিহত  সাঘাটায় নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণে ওয়ার্কসপ অনুষ্ঠিত  প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ১২ সদস্যের ডেল্টা কাউন্সিল গঠন   মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি,সাক্ষীরা জানেনা তারা ঘটনার সাক্ষী   দেশে ভয়াবহ দুঃশাসন চলছে: ফখরুল   বাংলাদেশি গার্মেন্টস কর্মীদের টাকা পাঠাচ্ছেন এক ভিনদেশি ব্যবসায়ী   ডিসি পদে নিয়োগ পাওয়া কয়েকজনকে ঘিরে বিতর্ক   দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রেকর্ড ৩৬.০১৬ বিলিয়ন ডলার  চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে ৩ নারীসহ গ্রেপ্তার ৭   করোনামুক্ত হলেন জোকোভিচ ও তার স্ত্রী  বাজেটে রাষ্ট্রীয় সম্পদ লুটের সুযোগ বেড়েছে : ফখরুল   রাষ্ট্রায়ত্ত সব পাটকল বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার   করোনা: ঝিনাইদহ জেলা, ৫ জনের মৃত্যু আক্রান্ত ২৩৬!  প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় ইউপি সদস্য ধরা  কুয়েতে এমপি পাপুল ব্যাংক হিসাবে ১৩৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা জব্দ।  আড়াইহাজারে মন্দিরে অগ্নি সংযোগ ঘটনা  রূপগঞ্জে হত্যা পর লাশে সিমেন্টের প্রলেপ

করোনা সংকটকালে মানবিক সহযোগিতায় প্রসংশিত সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ

জনকল্যাণমূলক কাজে

 Mon, Jun 29, 2020 12:43 AM
করোনা সংকটকালে মানবিক সহযোগিতায় প্রসংশিত সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ

এশিয়া খবর ডেস্ক:: মানুষের পাশে দাড়িয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ। পুলিশ নিজেই বদলে ফেলছে নিজেদের।

 করোনার মহামারীতে মানবিক ভূমিকায় দেশবাসীর দৃষ্টি কেড়েছে পুলিশ। এ এক অন্য রকম পুলিশ, জনতার পুলিশ।

পুলিশ শুধু আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কাজে নিয়োজিত থাকে না। এর পাশাপাশি মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়েও মানুষকে সাহায্য করে থাকে। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী চলতে থাকা মহামারী করোনাভাইরাসের আক্রান্তদের যেখানে আপনজন পর হয়ে যায় সেখানে পুলিশ জীবন, সংসার ও পরিবারের কথা চিন্তা না করে আক্রান্তদেরকে সাহায্য করতে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন।


সাতক্ষীরার পুলিশ বিভাগ মহামারী করোনা সংকটকালে জেলার মানুষের পাশে থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দিয়ে মানবিক পুলিশ হিসেবে প্রসংশিত হয়েছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শুরু থেকে জেলা পুুলিশ ত্রাণ বিতরণ থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত, করোনায় আক্রান্ত হলে তদের পাশে দাঁড়ানো, করোনায় মৃতদের দাফন ও শেষকৃত্য করতে একটি প্রশিক্ষিত টিম প্রস্তুত করাসহ নানামুখী জনকল্যাণমূলক কাজ করে চলেছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সংকটময় মুহূর্তের শুরু থেকেই সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের পিপিএম (বার) সরাসরি তত্বাবধানে জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্যকে ফেসমাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ডগ্লাভস, ফেসশিল্ড, সাবান, পিপিইসহ বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ওষুধ সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। আক্রান্ত পুরুষ ও নারী পুলিশ সদস্যদের জন্য আলাদা কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সংকটময় পরিস্থিতিতে চার হাজার অসহায় দুস্থ, মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। অনেক পরিবারকে নগদ অর্থও প্রদান করা হয়েছে। করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে ট্রাকের মাধ্যমে জীবাণুনাশক স্প্রে করে। এ ছাড়া করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় জেলার প্রতিটি থানায় মাইকিং এবং লিফলেট বিতরণ করে ব্যাপকভাবে জনসচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে মানুষকে ঘরে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছে।


এ ছাড়াও বিদেশ ফেরত বা দেশের অন্য জেলা থেকে আগতদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে শুরু থেকেই সক্রিয় সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ। প্রতিটি থানা এলাকায় আক্রান্তদের বাড়ি লাল পতাকা টানিয়ে লকডাউন করা এবং তাদের সার্বিক সহাযোগিতা করা হচ্ছে।


সাতক্ষীরা জেলার সঙ্গে যশোর জেলার সীমান্ত কলারোয়া উপজেলার বেলতলা এবং খুলনা জেলার সীমান্ত তালা থানার সুভাষিনিতে আন্তঃজেলা পুলিশ চেকপোস্ট স্থাপন করে বাইরের জেলা থেকে প্রবেশ বা বাহির নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। ফেসবুক লাইভে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার জনসাধারণকে সচেতন করতে ও জনসাধারণের সমস্যা সম্পর্কে প্রশ্নোত্তর কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।


করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কেউ মৃত্যুবরণ করলে মৃতদেহের দাফন ও শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে জেলা পুলিশ কুইক রেসপন্স টিম গঠন করেছে। এ ছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে বেশ কিছু বডি ব্যাগ হস্তান্তর করা হয়েছে।



পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, গত মার্চ মাসে দেশে মহামারী করেনা ভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ দ্রুত নানামুখী কর্মসূচি হাতে নেয়। ওই সময় থেকে জেলা পুলিশ দীর্ঘ সময় দেশে সাধারণ ছুটিতে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে দরিদ্র ও অসহায়, এমনকি মধ্যবিত্ত পরিবারের বিপুলসংখ্যক মানুষকে রাতের আঁধারে খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করে।

পুলিশ সুপার আরও জানান, জেলা পুলিশ সাতক্ষীরাকে করোনামুক্ত রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর পরও জেলা থেকে নমুনা নিয়ে টেস্ট করার পর যেসব ব্যক্তির রিপোর্ট পজিটিভ আসছে তাদের (আক্রান্ত ব্যক্তি) বাড়িতে বা প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন রাখতে পুলিশ সর্বশক্তি প্রয়োগ করে কাজ করছে। কুইক রেসপন্স টিম জেলাব্যাপী এলাকাভিত্তিক লকডাউন ও আক্রান্তদের কোরায়েন্টিন নিশ্চিত করা, চিকিৎসা, করোনায় মৃতদের দাফন ও সৎকার করছে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন