সদ্য সংবাদ

 এসপি জানতেন ওসি প্রদীপের ‘জলসা ঘরে’ চলত ভ’য়ংকর সব অপরাধ!  এবার রাজশাহী রেঞ্জ এসপির বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর চাঁদাবাজির মামলা  আড়াইহাজারে মার্কেটের ছাদে যুবকের গলাকাটা লাশ  সুশাসনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় টিআইবির নয় দফা  নির্বাচনে দলীয় টিকেট নিশ্চিত করেছেন ইলহান ওমর   ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায়, পাঁচ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা   ওসি শিশিরের অপকর্ম তদন্তে পুলিশ হেডকোয়াটার্সের টিম বরিশালে   বাড়ার পর এবার স্বর্ণের দাম কমল   সিফাতের ভাষ্য: বাংলাদেশ কাম ডাউন, কাম ডাউন, এরপর গুলি..   মেজর সিনহা হত্যা মামলা: ১৬ আগস্ট গণশুনানি করবে তদন্ত কমিটি   মেজর সিনহার হত্যাকাণ্ড নিয়ে যা বললেন এমপি হারুন  বর্ধিত বাসভাড়া বাতিলের দাবিতে সীতাকুণ্ডে যাত্রী কল্যাণ সমিতির সমাবেশ  শৈলকুপায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে ৬ মামলার আসামী গ্রেফতার   ঝিনাইদহে মোট আক্রান্ত ১২১৩ ও মৃত্যু ৪০ জন  পঞ্চগড়ে শিক্ষক নিয়োগে হাতিয়ে নিয়েছে ৩০ লাখ টাকা   মেজর সিনহার খুনী পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকতের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ  নিজের জন্ম শহরে ৫০টি ভেন্টিলেটর দিলেন মেসি   পুলিশের সংস্কার প্রয়োজন- এসপি মোহাম্মদ জায়েদুল আলম   নায়িকার শরীর নিয়ে মন্তব্য করে বিপাকে পরিচালক  সরকার পদত্যাগের পরও যে কারণে বিক্ষোভে উত্তাল বৈরুত

কক্সবাজার সৈকতে পাঁচ শতাধিক স্বেচ্ছাসেবীর পরিচ্ছন্নতা অভিযান

 Wed, Jul 15, 2020 10:43 PM
কক্সবাজার সৈকতে পাঁচ শতাধিক স্বেচ্ছাসেবীর পরিচ্ছন্নতা অভিযান

কক্সবাজার প্রতিনিধি:: কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে

ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে শুরু হয়েছে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম। বিশেষ করে সমুদ্র সৈকতে সম্প্রতি ভেসে আসা প্লাস্টিকজাত বর্জ্য অপসারণের অংশহিসেবে এই কার্যক্রম চালু করা হয়েছে বলে জানালেন জেলা প্রশাসনের একটি সূত্র।

সৈকতের নাজিরারটেক পয়েন্ট থেকে হিমছড়ি পয়েন্ট পর্যন্ত প্রায় ১২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে পড়ে থাকা বর্জ্যগুলো অপসারণ করা হচ্ছে। সামাজিক ও পরিবেশ সংগঠনগুলোর সহযোগিতায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসন এ কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

বুধবার সকাল ১০টায় দরিয়ানগর পয়েন্ট থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আশরাফুল আফসার, কক্সবাজার পরিবেশ অধিদফতরের উপ-পরিচালক নাজমুল হুদা, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) ইমরান জাহিদ, ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি (ইয়েস) কক্সবাজারের প্রধান নির্বাহী ইব্রাহিম খলিল মামুন ও রাশেদুল মজিদ।

পিরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযানে অংশনেয়া ১১টি সংগঠন সামাজিক ও পরিবেশ সংগঠন। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযানে অংশ নেয়া নজরুল ইসলাম জানান, নাজিরারটেক থেকে হিমছড়ি পয়েন্ট পর্যন্ত এলাকার বর্জ্যে অপসারণ প্রায় শেষ হয়ে গেছে। যা বাকি রয়েছে তা অপসারণে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি (ইয়েস) কক্সবাজারের প্রধান নির্বাহী ইব্রাহিম খলিল মামুন বলেন, আমরা যারা পরিবেশ নিয়ে কাজ করি শুধু আন্দোলনের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলে হবে না। সব সংগঠনকে দেশের পরিবেশ সংরক্ষণে আন্দোলনের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকের ভূমিকাও পালন করতে হবে। তাই জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আজকের সৈকত পরিচ্ছন্ন অভিযানে পরিবেশ কর্মীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেছেন।

কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আশরাফুল আফসার বলেন, কিছু কিছু পয়েন্টে ইতিমধ্যে পরিষ্কার করা হয়েছে। তবে বর্জ্যের পরিমাণ বেশি হওয়ায় সব পয়েন্টে পরিষ্কার করতে আরও ২/১ দিন সময় লাগবে। জেলা প্রশাসনের আহ্বানে পরিবেশবাদী তরুণ স্বেচ্ছাসেবকরা এগিয়ে আসায় ধন্যবাদ জানান তিনি।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আরও বলেন, কক্সবাজারে পরিবেশ নিয়ে কাজ করা ১১টি পরিবেশবাদী সংগঠন যৌথভাবে সৈকতে ভেসে আসা বর্জ্য পরিষ্কারের উদ্যোগ নিয়েছে। যা খুবই প্রশংসনীয় ও ভালো উদ্যোগ।

এ দিকে সমুদ্র সৈকত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নেয়া সংগঠনগুলো হল- বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি (ইয়েস) কক্সবাজার, এনভায়রনমেন্ট পিপলস, কক্সবাজার নাগরিক আন্দোলন, টিম কক্সবাজার, কক্সিয়ান এক্সপ্রেস, দরিয়ানগর গ্রীণ ভয়েস, প্লাস্টিক ব্যাংক বাংলাদেশ, ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস, উইকেন, তারুণ্যের প্রতিবাদ ও পরিবেশ বিক্ষণ।

কক্সবাজার পর্যটন সেলের দায়িত্বে থাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান জাহিদ খান বলেন, স্বেচ্ছাসেবকদের সুরক্ষার জন্য মেডিকেল টিম, ব্যাগ, গ্লাভসসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সাপোর্ট দেয়া হয়েছে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন