সদ্য সংবাদ

 করোনা আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন অভিনেত্রী কবরী  আশা ও তামাশার লকডাউন  কত বছর করোনার সঙ্গে থাকতে হবে কেউ জানিনা- ডা ফাহিম  ডলারের লোভে দুই মেয়েই অপহরণ করেছিলেন ম্যারাডোনাকে!  জনবল নিয়োগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অবিশ্বাস্য দুর্নীতি, কঠোর শাস্তি চায় টিআইবি  অভিষেক 'উমরাও জান' ছবিতে ঐশ্বরিয়ার প্রেমে পড়েন।   ছাত্রলীগ নেতার জিন্স প্যান্ট চুরির ভিডিও ভাইরাল   লকডাউনে পুলিশের কাছ থেকে ‘মুভমেন্ট পাস’ নিতে হবে।   নরেন্দ্র মোদির পরিকল্পনায় ৪ মুসলমানকে গুলি করে হত্যা-মমতা   এক সপ্তাহ সব ধরনের অফিস ও পরিবহন চলাচল বন্ধ থাকবে  র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হেফাজতের ৪ নেতা  আহমদ শফীর মৃত্যু: বাবুনগরীসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দিল পিবিআই  অপরিকল্পিত লকডাউন বিপজ্জনক পরিস্থিতির : রব  আড়াইহাজারে নবম শ্রেনীর ছাত্রীর ধর্ষক গ্রেফতার   নতুন নির্দেশনা, সাত দিন বন্ধ থাকবে ব্যাংক   অভিনেত্রী পায়েলের ওপর হামলা   বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের ডাক মির্জা ফখরুলের  নারায়ণগঞ্জ ডি‌বি পু‌লি‌শের সোর্স প‌রিচ‌য়ে বেপরোয়া সেই মোফাজ্জল ও মিশু চক্র   দেশে করোনায় ১৩ দিনে ৭৯২ জনের মৃত্যু   গুলিতে ৪ মুসলমানের মৃত্যুতে তীব্র ক্ষোভ মমতার

অনন্ত জলিল- হিরো আলম দ্বন্দ্ব, নেপথ্যে

 Fri, Jul 17, 2020 10:58 PM
 অনন্ত জলিল- হিরো আলম দ্বন্দ্ব, নেপথ্যে

এশিয়া খবর ডেস্ক:: আলোচিত হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা বানানোর ঘোষণা দিয়েছিলে

ন নায়ক প্রযোজক অনন্ত জলিল। কিন্তু গতকাল ১৬ জুলাই এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে অনন্ত জানিয়েছেন তিনি আগের ঘোষণা থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। তিনি আর হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা বানাবেন না। এরপর থেকেই শুরু হয়েছে অনন্ত জলিল ও হিরো আলমের দ্বন্দ্ব নিয়ে নানা বিতর্ক। সেই বিতর্ক-যুদ্ধে হিরো আলমও পাল্টা মন্তব্য করেছেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক অনন্ত জলিল-হিরো আলম দ্বন্দ্বের নেপথ্যে ঠিক কী ঘটেছিল।

হিরো আলমকে নিজের সিনেমা থেকে বাদ দেওয়া প্রসঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন অনন্ত জলিল। অনন্ত বলেন, ‘আমি হিরো আলমকে নিয়ে কোন সিনেমা বানাবো না  এবং পঞ্চাশ হাজার টাকা সাইনিং মানি ফেরত নেব না।’

কারণ হিসেবে অনন্ত বলেন, ‘সিংহভাগ বিনোদন সাংবাদিক এবং চলচ্চিত্র পরিবারের গুণীজনরা হিরো আলম কে নিয়ে সিনেমা বানানোর আপত্তি জানাচ্ছেন। রিসেন্টলি তার কিছু অশ্লীল ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সকলেই আবারো আমাকে নিষেধ করছেন, তাকে নিয়ে যেন সিনেমা না বানাই। সব সময় আমি বিব্রত হচ্ছি, হিরো আলমের এসব বিতর্কিত বিষয়গুলোর জন্য। চলচ্চিত্রের কোন সংগঠনই চাচ্ছে না যে আমি হিরো আলমকে নিয়ে সিনেমা বানাই। চলচ্চিত্রের  প্রত্যকটি সংগঠনের সম্মানার্থে  আমিও চাই না  বিতর্কিত কাউকে নিয়ে সিনেমা বানাতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘কিছুদিন আগে আমি নিজ উদ্যোগে জায়েদ খানের সঙ্গে হিরো আলমকে মিল করিয়ে দিয়েছিলাম। মীমাংসা করে দেওয়ার পরেও একই বিষয় নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় হিরো আলম  মন্তব্য করছেন  যা মোটেও কাম্য নয়। সে আমার মর্যাদা বোঝে নাই। আমার মর্যাদা যেহেতু  বোঝে নাই তাই  আমি চাই না ভবিষ্যতে  তার  দ্বারা  আমার মর্যাদা ক্ষুণ্ন হোক।’

অনন্তর সিনেমা থেকে বাদ পড়া নিয়ে হিরো আলম  বলেন, ‘১৫ জুলাই প্রযোজক সমিতির সংবাদ সম্মেলনে আমি জায়েদ খানকে নিয়ে কথা বলেছিলাম। গতকাল (১৬ জুলাই) দুপুরে অনন্ত জলিল আমাকে ফোন দিয়ে বললেন আমি কেন জায়েদ খানের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। এ জন্য তিনি আমাকে সিনেমা থেকে বাদ দিয়েছেন। তো কেউ সিনেমা থেকে বাদ দিলে আমার কিছু করার নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনন্ত জলিল আমাকে যে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছেন সেটা আমি ফেরত দিবো। আমি কেন অন্যের টাকা নিতে যাব। আমি ভিক্ষুক নাকি যে তার টাকা আমি নেব।’

হিরো আলম আরও বলেন, ‘আমি জায়েদ খানের বিরুদ্ধে তেমন কোনো কথা বলিনি। প্রযোজক সমিতির মিটিংয়ে উপস্থিত হয়ে নিরপেক্ষ কথা বলার চেষ্টা করেছি। প্রকৃত সত্য তুলে ধরেছি। তারপরও যদি তিনি আমাকে দোষী করেন তো করার কিছু নেই। এ ক্ষেত্রে আমি বলব, আলোচনা তৈরি করার জন্যই তিনি হয়তো এমন ঘোষণা দিয়েছেন। যদি তাই হয় তাহলে তিনি আমাকে ব্যবহার করেছেন। এর বেশি কিছু আমার বলার নেই।’

এর আগে একটি টকশো’তে জায়েদ খানকে উপস্থাপক হিরো আলম সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে জায়েদ হিরো আলমকে চেনেন না বলে মন্তব্য করেছিলেন। এমন মন্তব্যের জবাবে হিরো আলম প্রযোজক সমিতিতে মানহানির অভিযোগ করেছিলেন। এরপরেই অনন্ত জলিল জায়েদ খান ও হিরো আলমকে মিলিয়ে দিয়েছিলেন।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন