সদ্য সংবাদ

 ইউএনও ওয়াহিদার বাসায় টাকা ছিল ৪০ লাখ, সেই মালি নেয় ৫০ হাজার   ‘তিশা প্লাস’ বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে গণধর্ষণ  'ঊর্মিলাকে পর্ন অভিনেত্রী' বললেন কঙ্গনা  যে যাই বলুক, আসলে মানুষ‌‌ পুলিশকে ভালোবাসে   আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে কাজ করবেন, সরকারি কর্মচারীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী  ট্রাম্পের নারী কেলেংকারি ফাঁস, মুখ খুললেন মডেল  দেশের অর্থনীতি ধ্বংস করার চেষ্টা করছে ভারত : জাফরুল্লাহ  তিতাস-ডিপিডিসি ও মসজিদ কমিটি দায়ী: প্রশাসনের তদন্ত প্রতিবেদন  তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কে সীমাহীন র্দূভোগ:দেখার কেউ নেই   মসজিদে অগ্নিকাণ্ডে নিহত পরিবারের মাঝে জেলা আ:লীগের আর্থিক সহায়তা প্রদান   ধর্ষণ মামলায় শিল্পপতি ছেলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড   পঞ্চগড়ে চা পাতা চুরির অভিযোগ,  প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাটহাজারী মাদরাসা বন্ধ ঘোষণা  ঝিনাইদহে সন্তান নিখোঁজ: খুঁজছে বাবা-মা   ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার কক্সবাজারে বদলি, যোগদান করলেন মুনতাসিরুল ইসলাম  ইসরাইল-ফিলিস্তিন অশান্তি উসকে দিল ট্রাম্পের ‘শান্তি চুক্তি’  পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু: ক্ষতিপূরণের ২ লাখ টাকা জমা দিলেন এসআই জাহিদের পরিবার  আ: লীগের বরকত-রুবেলের দুটি প্রতিষ্ঠানের ২৫ কার্যাদেশ বাতিল   সেই শিশু ইয়ামিনকে জার্সি-ব্যাট দিলেন মুশফিক   জিম্মি করে ব্যাংক লুটের চেষ্টা, বোমাসহ যুবক আটক

সিফাতের ভাষ্য: বাংলাদেশ কাম ডাউন, কাম ডাউন, এরপর গুলি..

 Wed, Aug 12, 2020 11:13 PM
   সিফাতের ভাষ্য: বাংলাদেশ কাম ডাউন, কাম ডাউন, এরপর গুলি..

এশিয়া খবর ডেস্ক:: 'কাম ডাউন, কাম ডাউন। এরপর আমি গুলির শব্দ শুনি।

তারপর আমি দেখলাম সিনহা স্যার মাটিতে পড়া। তখন আমি ভেবেছিলাম শরীরে লাগেনি, হয়তো ফাঁকা আওয়াজ করেছেন, উনি হয়তো মাটিতে শুয়ে পড়েছেন। তারপর দেখলাম উনার শরীর থেকে রক্ত বের হচ্ছে।' সেদিন মেরিন ড্রাইভের চেকপোস্টে কী ঘটেছিল তা জানতে চাইলে সাংবাদিকদের এমন কথা বলেন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের সঙ্গী সাহেদুল ইসলাম সিফাত।
সিফাত জানান, তথ্যচিত্রের জন্য ছবি ধারণ করতে বিকেলে পাহাড়ে ওঠেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা সিনহা। তার সঙ্গী ছিলেন সিফাত। আটক হওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদেও বলেছিলেন, পাহাড়ে সিনহার সঙ্গে কোনো আগ্নেয়াস্ত্র ছিল না।
সিফাত বলেন, 'না কোনো অস্ত্র ছিল না। আমাদের হাতে ট্রাইপড ছিল, ওটাকে উনারা ভুল বুঝতে পারেন। কিন্তু পাহাড় থেকে নামার সময় কোনো অস্ত্র ছিল না। আমি হাত তোলা দেখে পেছনে চলে এসেছি। আমাদের আগেই গাড়ি থেকে নামতে বলেছিল।'
সাহেদুল ইসলাম সিফাত জানান, পুলিশের পক্ষ থেকে চিৎকার করা হয়। বলা হয় বের হ। গাড়ি থেকে বের হ। আমি যখন গাড়ি থেকে নেমে পেছনে হাঁটা শুরু করি। সিনহা স্যারও গাড়ি থেকে নামেন।
সিফাত আরও বলেন, 'শামলাপুর চেকপোস্টে পরিচয় জানার পর গাড়ির সামনে ড্রাম ফেলে আটকে দেওয়া হয়। আমরা প্রথম যখন পৌঁছেছি আমাদের বলা হলো আপনাদের সম্পর্কে জানান। আমরা গাড়ির গ্লাস ওঠানোর সময় উনি (পরিদর্শক লিয়াকত আলী) আসলেন। এসে উনি বললেন, দাঁড়ান আবার বলেন। এরপর তিনি দৌড়ে গিয়ে ড্রামটা সামনে দিয়ে দিলেন। তাদের গায়ে পুলিশের ইউনিফর্ম ছিল না। তারা ৪-৫ জন ছিল।'
প্রত্যক্ষদর্শী সিফাত বলেন, সিনহা স্যার যখন গাড়ি থেকে নামেন আমি দেখেছি উনি পিস্তলটা গাড়িতে রেখে নেমেছেন। আমি দেখেছি তিনি দুই হাত তুলে গাড়ি থেকে নেমেছেন। আমি তো পেছনে ছিলাম। তাই আমি শুধু দেখেছি তিনি নিচু হয়েছিলেন।
সিফাত জানান, গুলি করার সময় আশপাশে তেমন লোকজন ছিল না। দূরে হয়তো ছিল। তবে প্রথম দিকে কোনো ভিড় হয়নি। প্রথমে পেছনে একটা বা দুইটা গাড়ি ছিল। পরে ভিড় হয়েছিল।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন