সদ্য সংবাদ

 ইউএনও ওয়াহিদার বাসায় টাকা ছিল ৪০ লাখ, সেই মালি নেয় ৫০ হাজার   ‘তিশা প্লাস’ বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে গণধর্ষণ  'ঊর্মিলাকে পর্ন অভিনেত্রী' বললেন কঙ্গনা  যে যাই বলুক, আসলে মানুষ‌‌ পুলিশকে ভালোবাসে   আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে কাজ করবেন, সরকারি কর্মচারীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী  ট্রাম্পের নারী কেলেংকারি ফাঁস, মুখ খুললেন মডেল  দেশের অর্থনীতি ধ্বংস করার চেষ্টা করছে ভারত : জাফরুল্লাহ  তিতাস-ডিপিডিসি ও মসজিদ কমিটি দায়ী: প্রশাসনের তদন্ত প্রতিবেদন  তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কে সীমাহীন র্দূভোগ:দেখার কেউ নেই   মসজিদে অগ্নিকাণ্ডে নিহত পরিবারের মাঝে জেলা আ:লীগের আর্থিক সহায়তা প্রদান   ধর্ষণ মামলায় শিল্পপতি ছেলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড   পঞ্চগড়ে চা পাতা চুরির অভিযোগ,  প্রজ্ঞাপন দিয়ে হাটহাজারী মাদরাসা বন্ধ ঘোষণা  ঝিনাইদহে সন্তান নিখোঁজ: খুঁজছে বাবা-মা   ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার কক্সবাজারে বদলি, যোগদান করলেন মুনতাসিরুল ইসলাম  ইসরাইল-ফিলিস্তিন অশান্তি উসকে দিল ট্রাম্পের ‘শান্তি চুক্তি’  পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু: ক্ষতিপূরণের ২ লাখ টাকা জমা দিলেন এসআই জাহিদের পরিবার  আ: লীগের বরকত-রুবেলের দুটি প্রতিষ্ঠানের ২৫ কার্যাদেশ বাতিল   সেই শিশু ইয়ামিনকে জার্সি-ব্যাট দিলেন মুশফিক   জিম্মি করে ব্যাংক লুটের চেষ্টা, বোমাসহ যুবক আটক

খেলনায় লেখা নম্বরে ফোন দিয়ে মায়ের জীবন বাঁচাল ৫ বছরের শিশু

 Sat, Aug 29, 2020 9:04 PM
খেলনায় লেখা নম্বরে ফোন দিয়ে মায়ের জীবন বাঁচাল ৫ বছরের শিশু

এশিয়া খবর ডেস্ক:: খেলনা গাড়িতে লেখা জরুরি সেবা নম্বরে ফোন দিয়ে মায়ের

 জীবন বাঁচিয়েছে এক পাঁচ বছরের শিশু। ইংল্যান্ডের ওরসেস্টারশায়ার রাজ্যে এ ঘটনা ঘটে।

ওয়েস্ট মারসিয়া পুলিশ সেই ঘটনার বিস্তারিত জানিয়ে ফেইসবুকে একটি পোস্ট করেছে।

পোস্টে লেখা হয়েছে, গত মাসে জস নামের এই পাঁচ বছরের শিশুটি বাড়িতে তার দেড় বছরের ভাইয়ের সঙ্গে খেলছিল। হঠাৎ তাদের মা অসুস্থ হয়ে পড়েন। জস ঘাবড়ে না গিয়ে, ফোন করে এমার্জেন্সি নম্বরে। সেখান থেকে পুলিশ এবং অ্যাম্বুল্যান্স এসে পৌঁছায় তাদের বাড়ির সামনে।

সময় মতো জসের মাকে হাসপাতালে ভর্তি করার ফলে তার প্রাণ বেঁচে যায় বলে জানানো হয়েছে ওয়েস্ট মারসিয়া পুলিশের ফেসবুকে।

এবার কেউ ভাবতেই পারেন, পাঁচ বছরের শিশুটি এমার্জেন্সি নম্বর পেল কী ভাবে। আসলে জসের একটি খেলনা অ্যাম্বুল্যান্স রয়েছে। তার গায়ে 'এমার্জেন্সি ১১২' লেখা রয়েছে। ১১২ নম্বরটি সে দেশের অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবার এমার্জেন্সি নম্বর। সেটা দেখেই জস সাহস আর বুদ্ধি খাটিয়ে ফোন হাতে তুলে নেয়। সে এর আগে ফোন করেনি বলে জানা গিয়েছে। ফোনের অপর প্রান্তে থাকা অপারেটরকে কোনও ভাবে বোঝাতে সক্ষম হয় তার মায়ের অবস্থা। পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝতে পারেন ওই অপারেটর।

শেষ পর্যন্ত জসের সেই ফোন কলই তার মাকে বাঁচিয়ে দেয়। আর পাঁচ বছরের এক শিশুর এমন কাজের প্রশংসা করেছে পুলিশ বিভাগও। তাদের পেজে জসের সঙ্গে পুলিশ কর্মীদের একটি ছবিও পোস্ট করা হয়েছে। সেখানে জসের মাথায় আবার পুলিশের একটি টুপিও পরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন