সদ্য সংবাদ

 সবাইকে মাস্ক পরার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর  'প্রতারক' লিটন শিকদার গ্রেপ্তার  ফতুল্লার ভূইঘরে রক্সি ফোম কারখানায় আগুনের ঘটনায় মামলা ॥ গ্রেফতার ১   উৎকোচ নিয়ে ও প্রতিবন্ধির টাকা ও কার্ড কেড়ে নিলেন ইউপি সদস্যা  নবীনগরে ইলিশ মাছ ধরার দায়ে জরিমানা  মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশকালে ১১ জন আটক  ঝিনাইদহে শিক্ষানবিশ আইনজীবিদের মানববন্ধন  শৈলকুপায় এলজিইডি’র কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন  দুর্নীতির দায়ে কারাগারে সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ  প্রাথমিকে ৩০ হাজার শিক্ষক নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ  রূপগঞ্জে বিএনপির মঞ্চে উঠে হামলা, মান্না-তৈমূর আহত  রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে না পাঠাতে আন্তর্জাতিক চাপ রয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   র‌্যাম্প মডেল তৈরির নামে ভয়ঙ্কর ফাঁদ   সাঘাটায় নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং র‌্যালী অনুষ্ঠিত   খুলনার কৃষি কর্মকর্তা মিজানের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়  সিইসি মিথ্যা বলছেন, ঢাকা থেকেই ১৬২টি অভিযোগ দেয়া হয়েছে: ফখরুল  নারায়ণগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবকলীগ সম্পাদক সন্ত্রাসী মীরু আটক   কারাবাখে ৭ শতাধিক আর্মেনীয় যোদ্ধা নিহত   শিশুদের উন্নত ভবিষ্যত দিতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী  মিঠুন পুত্রের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

এই সরকারকে সরাতে হবে: মির্জা ফখরুল

 Sat, Sep 19, 2020 9:48 PM
এই সরকারকে সরাতে হবে: মির্জা ফখরুল

এশিয়া খবর ডেস্ক:: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন,

 দেশের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষাপটে গণতান্ত্রিক আন্দোলন ছাড়া কেউই রক্ষা পাবে না। গণতন্ত্রকে, সাংবাদিকতা কাউকেই রক্ষা করা যাবে না, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকেও রক্ষা করা যাবে না। অবস্থা বদলে দেওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই। বদলে দেওয়ার একটাই পথ। আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে এই ভয়াবহ সরকারকে সরাতে হবে। গণতান্ত্রিক আন্দোলনই হচ্ছে তার একমাত্র পথ।

শনিবার মুক্ত সাংবাদিক অন্তর্ধান দিবস উপলক্ষে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-ডিইউজে (একাংশ) উদ্যোগে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় তিনি এসব বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, দেশের বর্তমান অবস্থা থেকে যদি মুক্তি পেতে একটা ঐক্য সৃষ্টি করেই তাদেরকে এগুতে হবে। এর জন্য সব রাজনৈতিক দলগুলোকে একখানে আসতে হবে এবং জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। পারস্পরিক সমস্যাগুলোকে দূর করতে হবে।

তিনি বলেন, এই সরকারের কোনোরকমের মূল্যবোধ নেই। আওয়ামী লীগ তো গণতন্ত্রই বিশ্বাস করে না। আওয়ামী লীগ ও গণতন্ত্র একসাথে যায় না, কখনোই যায় না। ওদের যে রসায়ন তার মধ্যে গণতন্ত্র হয় না। ওদের ভাবটাই হচ্ছে যে, আমি ছাড়া আর কেউ নেই। আমি একমাত্র দেশকে নিয়ন্ত্রণ করবো, আমি দেশ চালাবো, আমি সব কিছু।

গণমাধ্যমের ওপর সরকারের নিপীড়ন-নির্যাতনের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এটা নিসন্দেহে সবচেয়ে খারাপ সময়, সবচেয়ে কঠিন সময়। ভয়-ভীতি ও ত্রাস সৃষ্টি করে এমন একটা অবস্থা তৈরি করে ফেলা হয়েছে যে- আজকে কেউ লিখতে কিংবা বলতে সাহস করছে না। যত সাংবাদিক এখন বেকার আছেন, এতো বেকার কখনো ছিলো না। পঁচাত্তর সালের মতো সরকারের কথা যারা বলবে, তাদের পক্ষে যারা থাকবে তাদের পত্রিকা চলবে, তাদের চ্যানেল চলবে, তাদের গণমাধ্যমগুলো চলবে। অন্য যারা আছে তাদেরগুলো তারা চলতে দেবে না।

তিনি বলেন, অনেকের চাকরি নেই, অনেকে জেল-জুলুমের মামলার মধ্যে পড়েছেন। সাগর-রুনি থেকে শুরু করে অনেকে খুন হয়ে গেছেন, অনেকে গুম হয়ে গেছেন, অনেককে হত্যা করা হয়েছে। তারপরেও সাংবাদিকদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে। কারণ মুক্ত সাংবাদিকতা বা মুক্ত সংবাদমাধ্যম না থাকলে গণতন্ত্র কখনোই প্রতিষ্ঠিত হতে পারে না।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলামের সঞ্চালনায় ভার্চুয়াল এই আলোচনায় জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া মো. গোলাম পারোয়ার, বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, বিএফইউজের মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, সাবেক মহাসচিব এম এ আজিজ, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ, ডিইউজের বাকের হোসাইন, আবদুল আউয়াল ঠাকুর, নুরুল আমিন রোকন, বাছির জামাল, রাশেদুল হক, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোরসালীন নোমানী, ফটো জার্ণালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি একেএম মহসিন বক্তব্য দেন।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন