সদ্য সংবাদ

  নবীনগরে যুবদলের সভায় পুলিশের লাঠিচার্জে, আহত ২০   বাংলাবান্ধায় ৬ দিন মালামাল উঠানামা বন্ধ   হবিগঞ্জ সড়কে লাশ ফেলে পালাতে গিয়ে ঘাতক আটক  টিকা কিনতে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চায় বাংলাদেশ  জাতিকে ধ্বংস করতেই অটো পাসের সিদ্ধান্ত  ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যুতে প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর শোক  স্ত্রীর পাশে জেনারেল ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের দাফন সম্পন্ন  পুলিশ হত্যায় অভিযুক্ত চেয়ারম্যান স্বপনকে অব্যাহতি  আক্রমণের মুখে যুদ্ধে যেতে চাচ্ছেন না আর্মেনীয় সেনা সদস্যরা!  খুনের পর পুড়িয়ে ফেলা সেই দীলিপ হাইকোর্টে হাজির!   প্রতিটি গাড়ি চালককে ডোপ টেস্ট করানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  সিলেটের পুলিশ কমিশনারসহ ১৯ কর্মকর্তাকে বদলি   একই ব্যক্তিকে দুটি তারিখের জন্ম সনদ প্রদান   নবীনগরে একই দিনে দুই লাশ উদ্ধার  সাঘাটায় টিসিবি মালামাল ন্যায্য মূল্যে বিক্রয়  নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ নেতা তোফার ইয়াবা সেবন!   বাল্য বিবাহমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় সচেতনতা জরুরি  আড়াইহাজারে দুর্গা প্রতিমা ভাংচুর  নবীনগরে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং উদ্বোধন   অচিরেই জেলা ও মহানগর কমিটি ঘোষণা করা হবে

নিশিরাতে ভোটের কথা সিইসি স্বীকার করে নিয়েছেন: রিজভী

 Thu, Sep 24, 2020 10:14 PM
নিশিরাতে ভোটের কথা সিইসি স্বীকার করে নিয়েছেন: রিজভী

এশিয়া খবর ডেস্ক:: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা নিশিরাতে

 ভোট নেয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার স্বীকার করে নিলেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগের রাতের ভোটের কথা। তার নেতৃত্বেই জাতির চরম সর্বনাশ করা হয়েছে। মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। দেশ থেকে সুষ্ঠু নির্বাচন ব্যবস্থা নির্বাসনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে; গণতন্ত্রের সমাধি হয়েছে।


বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক এক ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে রিজভী এসব কথা বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার কড়া সমালোচনা করে বিএনপি মুখপাত্র বলেন,বুধবার সিইসি বলেছেন- দেশে কখনো রাতের বেলা কোনো ভোট হয়নি। পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটের দিন সকালে কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পাঠানো হবে, রাতে ভোট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আবার বলেছেন উপ-নির্বাচনে রাতে ভোট হওয়ার সুযোগ নেই।


রিজভী বলেন, সরকারের সঙ্গে লেজুড়বৃত্তি করে আপনারা নির্বাচন কমিশনকে এখন এক হাস্যকর তামাশার প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন। নির্বাচন কমিশন সরকারের ঢোল-তবলায় পরিণত হয়েছে। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের সংসদ নির্বাচন যে আসলে ২৯ তারিখ দিবাগত রাতেই হয়ে গিয়েছিল, সেটি এখন আর কারো কাছে গোপন নেই। দেশ-বিদেশে কোথাও সেই নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। দেশ থেকে নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে নির্বাচন কমিশন নামের ঠুঁটো জগন্নাথ প্রতিষ্ঠান এখন কুম্ভকর্ণের ঘুম দিয়েছে। এখন মাঝে মাঝে জেগে সুষ্ঠু ভোট হবে বলে বক্তব্য বিবৃতি দিলেও জনগণ তা বিশ্বাস করে না।

সিইসির ভূমিকার সমালোচনা করে তিনি বলেন, নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় বিরোধী দলের প্রার্থীদের বাদ দেয়া ও হয়রানি করাসহ ভোটারদেরকে ভয় দেখানো,মিথ্যা মামলা,গ্রেফতারের হিড়িক ইত্যাদি সরকারের সুষ্ঠু নির্বাচনবিনাশী কার্যক্রমের প্রধান সহায়তাকারী হিসেবে নির্বাচন নামক বিষয়টির অস্তিত্বই আপনি ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতাকে অবৈধ সরকারের কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন। জালিয়াতির নির্বাচনকে আপনি (সিইসি) বৈধ বলে ঘোষণা দিয়েছেন। গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার প্রধান কারিগর হিসেবে আপনার নাম ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, সিইসি বলেছেন, রাতে ব্যালট বাক্স ভর্তি করার জন্য কারা দায়ী, সেটা বলার সুযোগ নির্বাচন কমিশনের নেই। সিইসির নিকট আমাদের প্রশ্ন-এটা বলার সুযোগ নির্বাচন কমিশনের নেই, তা বুঝলাম, তবে সেই সুযোগটা কার আছে সেটা তো আপনি জানেন। কারণ আপনাদেরকে কে ইন্সট্রাকশন দিয়েছেন রাতে ভোট করার জন্য সেটা তো আপনাদের অজানা থাকার কথা নয়

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন