সদ্য সংবাদ

 সিদ্ধিরগঞ্জে ১৮ ফার্মেসিকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা জরিমানা  মেহেদি অনুষ্ঠানের ছবি শেয়ার করলেন কাজল  ফ্রান্সে মুহাম্মদকে ব্যাঙ্গাত্ব করার প্রতিবাদে পঞ্চগড়ে বিক্ষোভ   ৩৫ টাকার আলু নিচ্ছে ৪৫   ইসরাইলি-যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে : হামাস  ১০ নভেম্বর থেকে ৬৪ জেলায় ই-পাসপোর্ট  চর এলাকার মানুষের উন্নয়নে বোর্ড করার দাবি -ডেপুটি স্পিকার  আড়াইহাজারে ইয়াবা সহ গ্রেফতার ২   ফ্রান্সে মহানবীকে ব্যঙ্গ করায় নবীনগরে বিক্ষোভ   চোর যখন সৎ!   ‘শহর ও গ্রামের ব্যবধান কমাতে সরকার কাজ করছে’   নারায়ণগঞ্জ সদর থানার সাবেক ওসি কামরুল কারাগারে  দুর্নীতি-জালিয়াতি: ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জান্নাতুলকে দুদকে তলব   সড়কে মৃত্যুর ক্ষতিপূরণ ৫ লাখ টাকা  অভিনেত্রী মালভিকে কুপিয়েছেন প্রযোজক  কিশোরীকে গণধর্ষণের মামলায় ডিবির এএসআই গ্রেপ্তার  আওয়ামী লীগ চায় না ভোটাররা কেন্দ্রে আসুক : বিএনপি  সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কষ্ট পেয়েছিলাম  র‌্যাবের শীর্ষ কমান্ডারদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের আহ্বান  সু চিকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বলল যুক্তরাষ্ট্র

নাসিকের কাজের বাধা রাজউক-মেয়র আইভী

 Tue, Oct 13, 2020 10:31 PM
 নাসিকের কাজের বাধা রাজউক-মেয়র আইভী

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:: মামলাকে ভয় পাই না, কাজ করে যাবো এমন প্রতিশ্রুতি

দিয়ে মেয়র আইভী বলেন, পরিকল্পিত নগরায়নের জন্য আমাদের যে কাজগুলো করা দরকার সেগুলো করতে চাচ্ছি, কিন্তু পারছি না। কেন পারছি না? সেটা হলো রাজউক। রাজউক আমাদের জন্য অনেক বড় বাধাঁর তৈরি করে রেখেছে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-গাজীপুর রাজউকের আন্ডারে। রাজউকের জায়গাগুলো দীর্ঘদিন আমরা দখলে রেখেছিলাম। কারণ, একটা সময় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৪ একর জায়গা রাজউক একোয়ার করেছিল, এ শহরকে নগরায়ন করে দিবে বলে। বঙ্গবন্ধু রোড তারা করে দিয়েছিল, কিছু মার্কেট করে দিয়েছিল। পরবর্তীতে অনেক খালি জায়গা ছিল, কিন্তু সেগুলো তারা ফেরত দেয় নি, প্লট করে বিক্রি করেছে, এখনও করছে। ২০০৩ সালে আমি ক্ষমতায় এসে, রাজউকের জায়গাগুলো সব ফেরত চেয়েছিলাম, ২০০৫ সালে মামলা করেছিলাম আমাদের সম্পত্তি ফেরত দেয়া হোক। সেই মামলায় আন্দোলনে আমার সাথে নগরবাসীসহ বহু মানুষ যুক্ত হয়েছিল। অনেক হর্কাস মার্কেট করে দিয়েছিলাম, তৎকালীন সময়ে তারাও আমার সাথে যুক্ত হয়েছিল। ঢাকা শহরে রাজউকে গিয়ে নারায়ণগঞ্জের লোকজন ঘেরাও করেছে, অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছিল আমার কয়েকজন কাউন্সিলরও। তারপরও আমরা মামলা কন্টিনিউ করেছি, সেই মামলার মধ্য দিয়েই, কিভাবে রাজউক ব্যক্তির কাছে জায়গা বিক্রি করে দেয়। এই শহরের জনপ্রতিনিধিরা, তারা এই শহরকে রক্ষা করার জন্য আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হয়ে, শপথ নিয়েছে, দেশের সেবা করবে, শহরের সেবা করবে। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে, সেই জনপ্রতিনিধিরা রক্ষক হয়ে কিভাবে তারা ভক্ষক হয় সেই প্রশ্ন বিবেকের কাছে এবং নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে রাখতে চাই। কিভাবে মামলা চলমান অবস্থায়, রাজউকের চেয়ারম্যানের সাথে যোগসাজ করে এই নারায়ণগঞ্জ শহরের একজন জনপ্রতিনিধি সেই জায়গাকে বিক্রি করেছে, তার বন্ধুর নামে কিনে নিয়ে এসেছে, ৩ মাসের মধ্যে ৭ কোটি টাকা দিয়ে ১৪ কোটি টাকা বিক্রি করেছে। রাতারাতি আমাদের স্ট্যাম্পগুলো তুলে দিয়ে, সেখানে জবর দখল করেছে। বিচার নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে। যেখানেই আমি কাজ করতে যাই, সেখানেই বাধাঁ পাই। সুতরাং, আমার তো মন্ত্রণালয়সহ সব জায়গায় প্রশ্ন বাধাঁ কেন জনগণের জন্য। আমি একটি প্লটও রাজউকের কাছে চাই নাই, যদি চাইতাম, তাহলে পাইতাম। কিন্তু, নারায়ণগঞ্জের জন্য প্লট চাইতে গিয়ে, নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য কাজ করতে গিয়ে, মামলার পর মামলার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এমনকি আমিতো মামলা খাই, আমার ঠিকাদারদেরও রক্ষা নাই, এখন আমার ইঞ্জিনিয়ারদের বিরুদ্ধেও মামলা শুরু হয়েছে। এই হামলা মামলাকে আমরা ভয় পাই না, কাজ করে যাবো।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন