সদ্য সংবাদ

  ভাসান চর যেতে জড়ো হচ্ছে শত শত রোহিঙ্গা   পিরামিডের সামনে ‘আপত্তিকর’ ছবি, মিসরীয় মডেল গ্রেপ্তার   সিদ্ধিরগঞ্জে প্রো-অ্যাকটিভ ডাক্তারের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ   প্রতিবন্ধী মানুষের উন্নয়নে সমন্বিতভাবে কাজ করুন : প্রধানমন্ত্রী  করোনার টিকা সরবরাহে হানা দিতে পারে দুর্বৃত্তরা: ইন্টারপোল   এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণে অভিযুক্ত ৬, চার্জশিট বৃহস্পতিবার   মার্কিন দূতাবাসের কাছে ফেলে যাওয়া সেই ব্যাগে ছিল বালু ও তার   সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা সংবিধান পরিপন্থী: ফখরুল   হতাশাগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যা, নেপথ্যে প্রেম?  দুর্নীতিবাজ রুই-কাতলদের আইনের আওতায় আনতে হবে : হাইকোর্ট  সিদ্ধিরগঞ্জে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বৃদ্ধার জমি দখল করতে হামলা ও ভাংচুর ॥  সুনামগঞ্জের নৌপথে আ’লীগ সভাপতি পুত্রের চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন  পঞ্চগড়ে কৃষকদের মাঝে সার-বীজ ও কৃষি উপকরণ বিতরণ   নবীনগরে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেপ্তার  করোনার টিকার অনুমোদন চায় মডার্নাও  test news for news uploading   ‘কম খরচে যাতায়াতে দেশব্যাপী রেল নেটওয়ার্ক স্থাপন হবে  দুবাইয়ের ব্যবসায়ীর সঙ্গে বাগদান সারলেন বেনজিরের মেয়ে   বর্তমান সরকারের পতনের অবস্থা চলছে: ডা. জাফরুল্লাহ   বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর ব্যয় হবে ১৭ হাজার কোটি টাকা

জাতিকে ধ্বংস করতেই অটো পাসের সিদ্ধান্ত

 Sat, Oct 24, 2020 8:55 PM
জাতিকে ধ্বংস করতেই অটো পাসের সিদ্ধান্ত

এশিয়া খবর ডেস্ক:: ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, করোনার অজুহাতে শিক্ষা

 প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ রাখার এবং পরীক্ষা বাতিল করার কোনও কারণ নেই। এটি জাতিকে ধ্বংস করতেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শনিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এডুকেশন রিফর্ম ইনিশিয়েটিভ (ইআরআই) এর ব্যানারে করোনা কালে পরীক্ষায় অটো পাসঃশিক্ষার বর্তমান ও ভবিষ্যৎ শিরোনামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

ইআরআই চেয়ারম্যান ও সাবেক শিক্ষা প্রতি মন্ত্রী ড.আ ন ম এহছানুল হক মিলনের সভাপতিত্ব এবং গনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী,বিশেষ অতিথি নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, সাবেক ভূমি প্রতিমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস দুলু, সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম, মোঃ সেলিম ভূইয়া,ড়াকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এ বি এম ওবায়েদুল ইসলাম, এড, রফিক শিকদার, অধ্যাপিকা রোকেয়া চৌধুরী বেবী প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

শনিবার এক আলোচনায় বক্তারা এইচএসসি ও অন্যান্য পরীক্ষা না দিয়ে শিক্ষার্থীদের অটো-প্রমোশন দেওয়ার সরকারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে বলেন, দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ও জাতিকে ধ্বংস করা এটি বহু অংশের। তারা সরকারকে তার সিদ্ধান্তটি পর্যালোচনা করার এবং শিক্ষার্থীদের যোগ্যতা যথাযথভাবে মূল্যায়নের জন্য স্বল্প মাত্রায় পরীক্ষা দেওয়ার মতো কার্যকর প্রক্রিয়া তৈরি করার আহ্বান জানিয়েছে। (ইআরআই) উদ্যোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘করোনার সময় পরীক্ষায় অটো-পাস এবং শিক্ষার বর্তমান ও ভবিষ্যত’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি অন্যদের দ্বারা প্ররোচিত শিক্ষার্থীদের অটো পাস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অটো-প্রচার সিস্টেম গ্রহণ করার কোনও কারণ নেই। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দেশের শিক্ষাব্যবস্থা নষ্ট করতে এবং তাদেরকে ভারতের মতো অন্যান্য দেশে মানসম্মত শিক্ষার জন্য যেতে বাধ্য করার পিছনে একটি কারণ থাকতে পারে। আমাদের লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থী সাম্প্রতিক বছরগুলিতে ভারতে পড়াশোনার জন্য যাচ্ছেন। সুতরাং, অযাচিত তারা ভারতের জন্য একরকম ভালবাসা ধরে রেখেছে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন ১৯৭১ সালে দেশের মুক্তিযুদ্ধের আট মাসের সময় এক কোটি বাংলাদেশিকে খাওয়ানোর জন্য ব্যয় করা তুলনায় ভারত এখন এক বছরে পঞ্চাশবারের বেশি বেশি সুবিধা অর্জন করে। সংবাদপত্রের প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেছেন যে ২০১৮ সালে ভারত রেমিট্যান্স হিসাবে বাংলাদেশ থেকে ১২৮ বিলিয়ন ডলার পেয়েছিল। তিনি আরো বলেনআনুষ্ঠানিকভাবে ৫ লক্ষ লোকসহ প্রায় ১০ লাখ ভারতীয় বাংলাদেশে কাজ করছেন। বিভিন্ন ডিগ্রি থাকা সত্ত্বেও তিনি বলেছিলেন যে দেশের শিক্ষার মান ধীরে ধীরে হ্রাস পাওয়ায় দেশের শিক্ষার্থীরা বেকার রয়ে গেছে। “দেশের শিক্ষাব্যবস্থা এবং মানকে আরও নষ্ট করতে স্ব-প্রচার বিকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।


জাফরুল্লাহ বলেন, করোন ভাইরাস বন্ধের পরে যখন সবকিছু আবার চালু হয়েছে তখন করোনার অজুহাতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ রাখার এবং পরীক্ষা বাতিল করার কোনও কারণ নেই। “এটি জাতিকে ধ্বংস করার চালাকি ছাড়া কিছুই নয়। ২০১৪ এবং ২০১৮ এর সময় কোনও পরীক্ষা ছাড়াই অটো-পাস পেয়েছিল বলে এই সরকার এটি করেছে।

তিনি বলেন, এটি সত্য যে অটো-পাস ব্যবস্থা গ্রহণ করে সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তবে বিরোধী দলগুলি কেন দীর্ঘকাল এ ব্যবস্থা অনুসরণ করে আসছে? বৃহত্তম বিরোধী দল বিএনপি এবং সিবিপির মতো ভালো ব্যক্তিদের অন্যান্য দলও এটিকে ব্যবহার করছে কারণ তাদের নেতারা অটো-সিস্টেমের ভিত্তিতে পদ প্রত্যাবর্তন করছেন। রাজনীতিতে যখন অটো-পাস ব্যবহার করা হয়, লোকজন রাজনৈতিক দলগুলির প্রতি আস্থা হারিয়ে ফেলে। আমাদের সবার উচিত এটি নিয়ে চিন্তা করা।

তিনি আর বলেছেন যেহেতু নেতারা কোনও পরীক্ষা ছাড়াই দলীয় পদ পাচ্ছেন, তারাও কোনও ঝুঁকি নিচ্ছেন না এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কোনও লড়াইয়ে লিপ্ত হচ্ছেন না। রাজনৈতিক দলকে অটো-পাসের মাধ্যমে রাজনৈতিক বংশ এবং নেতা তৈরির অনুশীলন বন্ধ করতে হবে। লোকদের সমর্থন পেতে তাদের অবশ্যই নিয়মিত পরিষদ পরিচালনা করা উচিত এবং তাদের দলগুলির মধ্যে গণতান্ত্রিক অনুশীলন নিশ্চিত করতে হবে। রাজনীতি বা পরীক্ষায় কোথাও অটোর পাস হওয়া উচিত নয়।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা বলেছেন, জনবান্ধব সরকার থাকলে ১৫ দিনের মধ্যে সমস্ত ওষুধের দাম অর্ধেক হয়ে যেতে পারে। ওষুধ সংস্থাগুলি না শুধুমাত্র একটি বিশাল মুনাফা অর্জন করছে, তবে অতিরিক্ত মূল্য দিয়ে লোকদের ছিনতাই করছে।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, সরকার কেবলমাত্র ছাত্র আন্দোলনের মুখোমুখি হওয়ার ভয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি পুনরায় চালু করছে না। “যখন সবকিছু খোলা থাকে তখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার পেছনের কারণ কী। আপনাকে অবশ্যই আজ বা কাল এগুলি আবার খুলতে হবে এবং তারপরে আপনি শিক্ষার্থীদের রাস্তায় নেমে প্রতিহত করতে সক্ষম হবেন না।

তিনি বলেন, অটো-পাসের মাধ্যমে যখন কোনও সরকার এবং একজন প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসেন তখন তারা যথাযথ সমাধানের কথা চিন্তা না করে শিক্ষার্থীদের স্বপ্রচারের বিষয়ে স্বাভাবিকভাবে চিন্তাভাবনা করবে। এখানকার সমস্ত দল অটো-পাস সিস্টেম অনুসরণ করে দেশটি একটি গুরুতর রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন