সদ্য সংবাদ

  সাত টাকায় চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য: ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী   জিম্বাবুয়ের কাছে হারলো বাংলাদেশ   চট্টগ্রামে গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগে চিকিৎসক গ্রেপ্তার  স্বামীর অশ্লীল ভিডিও নিয়ে যা বললেন শিল্পা  ‘কঠোর লকডাউনে কারো পৌষ মাস কারো সর্বনাশ’   ভারতে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে মুসলিম ছাত্রীর ইতিহাস   না.গঞ্জে কঠোর বিধি-নিষেধ বাস্তবায়নে মাঠে প্রশাসন  অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড টিকা নিলে আজীবন সুরক্ষা!  বিক্রি করতে না পেরে চামড়ায় সয়লাব রাস্তা, উৎকট গন্ধ  নতুনধারার মাস্ক ও স্যানিটাইজার কেন্দ্র উদ্বোধন   সাংবাদিক রিজভী আহমেদের উপর সন্ত্রাসী হামলা!   জাহেদী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গরীব ও দুস্থদের মাঝে মাংস ও টাকা বিতরণ  সাগরে লঘুচাপ, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত  পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা, ফেরির মাস্টার বরখাস্ত  যুবলীগ নেতা আকবর আলীর ঈদ শুভেচ্ছা  মুসলিম রীতিতে বিয়ে করে বিপদে ভারতীয় ক্রিকেটার   চীন থেকে রাতে আসছে আরও ২০ লাখ সিনোফার্মের টিকা  সাঘাটায় বন্যার আশঙ্কায় পাট কাটতে ব্যস্ত চাষীরা   আড়াইহাজারে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু  আড়াইহাজারে ডাকাত সন্দেহে ৭জনকে গণপিটুনী

দেশে সদ্য জন্ম শিশুটির মাথায় ৮৪ হাজার ৭৭০ টাকা ঋণের দায়

ঋণের ভারে ন্যুজ দেশের অর্থনীতি: মির্জা ফখরুল

 Mon, Jun 14, 2021 8:59 PM
দেশে সদ্য জন্ম শিশুটির মাথায় ৮৪ হাজার ৭৭০ টাকা ঋণের দায়

এশিয়া খবর ডেস্ক::: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশের

 অর্থনীতি নিয়ে বলেছেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি বেশি ঋণ নির্ভর হয়ে পড়ছে এবং এটা এখন শেষ সীমায় পৌঁছে যাচ্ছে। অর্থনীতিতে গত এক যুগ ধরে সরকারের ভ্রান্ত অর্থনৈতিক নীতির বাস্তবায়ন চলছে। যার প্রভাবে এক ধরনের মন্দাভাব চলছে, উৎপাদন খাত শ্নথ হয়ে পড়েছে। ফলে রাজস্ব আয় কাংখিত লক্ষ্য অর্জন করতে পারছে না। ভ্যাট, শুল্ক্ক ও আয়কর সব ক্ষেত্রে আদায় কম। আয় কমে যাওয়ায় খুব স্বাভাবিকভাবেই খরচ মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে সরকার।’

সোমবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন  তিনি। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আরও বলেন, ‘ক্ষমতাসীন সরকার এখন 'লাগে টাকা দেবে গৌরী সেন' নীতিতে চলছে। ২০২১-২২ অর্থবছরে ঘোষিত প্রস্তাবিত বাজেটে অনুদান ছাড়া ঘাটতির পরিমান ধরা হচ্ছে, ২ লাখ ১১ হাজার ১৯১ কোটি টাকা। যা জিডিপির ৬.১ ভাগ। প্রতি বছর জুন মাসে দেশের মানুষ কল্পিত এক স্বপ্নের ফানুসে আবৃত বিশাল আকারের বাজেট দেখছে। আর নিজের অজান্তেই সদ্যজাত শিশুর মাথায় ঋণের বোঝা চাপছে। ইতোমধ্যে আজ যে শিশুটির জন্ম হয়েছে তার মাথায় ৮৪ হাজার ৭৭০ টাকা ঋণের দায় চাপছে। এরকম চলতে থাকলে আগামী অর্থবছরে ১ লাখ টাকার কাছে এই ঋণ চলে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘একগুচ্ছ বৃহৎ মেগা প্রকল্পের সঙ্গে বাড়ছে দৈনন্দিন খরচ। বছরের পর বছর ধরে প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করে ব্যয় অযৌক্তিকভাবে বাড়াচ্ছে সরকার। সব মিলিয়ে ব্যয় বেড়েই চলেছে।’

‘বৈশ্বিক মহামারী করোনার সর্বগ্রাসী ছোবলের ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে দেশে দেশে নেওয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা, সামাজিক সুরক্ষা ও নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির বিষয়গুলো। অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলায় কাতার ও ভিয়েতনামসহ অনেক দেশই সরকারী ব্যয়ের খাত সংকুচিত করার পথ অনুসরণ করেছে। অন্যদিকে গণবিচ্ছিন্ন সরকার গত বছরের মতো এবারো সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন-ভাতা বাবাদ ব্যয় বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। গত এক দশকে বেতন-ভাতা বাবদ সরকারের ব্যয় বৃদ্ধির হার দাড়িয়েছে ২২১ শতাংশ।’ – যোগ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘দেশে বৈদেশিক অনুদান কমছে। বাড়ছে কঠিন শর্তের ঋণ। বৈদেশিক ঋণের বোঝা বেড়েই চলেছেছ। প্রত্যেক মানুষের মাথায় এই ঋণের বোঝা চাপবে। এখন মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণ ২৩ হাজার ৪২৫ টাকা। প্রতি বছর সরকারের সুদ ব্যয় বেড়েই চলেছে। তিন বছরের সুদ ব্যয় হবে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। সর্বাত্মক ঋণ গ্রহণের জন্য প্রধান দায়ী সরকারের ব্যবস্থাপনাগত ব্যর্থতা। কর আদায় করতে না পারায় সরকারকে বেশি ঋণের আশ্রয় নিতে হচ্ছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সরকারের অব্যবস্থাপনা উন্নয়নে যদি সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হয় তবে বাংলাদেশের অর্থনীতি খুব শীঘ্রই জটিল পরিস্থিতির মাঝে উপনীত হবে। বাংলাদেশ এখনো স্বল্পোন্নত দেশ। ফলে বিশ্বব্যাংক, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল, এশিয়া উন্নয়ন ব্যাক এবং জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থার মতো ঋণদাতাদের কাছ থেকে বিশেষ সুবিধায় ঋণ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার পর সহজ শর্তে ঋণ পাওয়ার সুযোগ আর থাকবে না। এই সামগ্রিক অর্থনৈতিক দুর্বলতা চিহ্নিত করে একটি সমন্বিত নীতি পরিকল্পনা গ্রহণ না করে তবে ঋণের ভারে দেশের অর্থনীতি বিকলাঙ্গ কাঠামোয় পরিণত হবে।’

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন