সদ্য সংবাদ

 নারায়ণগঞ্জ ডিবির ক্যাশিয়ার আনোয়ার আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা!   ১৮ বছর বিমানবন্দরে বসবাসকারী সেই ইরানির মৃত্যু   ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদারে আগ্রহী পুতিন   কোনো বাধা বিএনপিকে ঠেকাতে পারবে না : রিজভী  পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বসেরার মুকুট ইংল্যান্ডের   ঢাকাতেই হবে হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন ও তল্লাশি- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   দুর্ভিক্ষ আসছে আতঙ্কে মানুষ  সাত পাকে বাঁধা পড়লেন 'আশিকি টু' ছবির সুরকার- গায়িকা  ডেঙ্গু: আরও ৭ মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৮৭৫   ১০০ সেতু চালু হওয়ায় দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে: প্রধানমন্ত্রী   অধিকার আদায় না করে ঘরে ফিরে যাব না: ফখরুল  ড্রোন নিয়ে মিথ্যা বলছে ইরান: জেলেনস্কি   ৩০তম বিসিএসের সেই পুলিশ কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত   ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশে আমরাও থাকব: মান্না  কোনো সিমই বিক্রি করতে পারবে না গ্রামীণফোন   সাংবাদিকদের আয়কর মালিকপক্ষই দেবে: হাইকোর্ট   বিয়েতে দেনমোহর ১০১টি বই   অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচনে সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্র'   মানুষের ওপর আক্রমণ করলে রক্ষা নেই: প্রধানমন্ত্রী   কপ-২৭ সম্মেলন: ১০০ বিলিয়ন ডলার চায় বাংলাদেশ

স্বামীকে গ্রেফতার ও সন্তানের সন্ধান চেয়ে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

 Thu, May 4, 2017 10:16 AM
স্বামীকে গ্রেফতার ও সন্তানের সন্ধান চেয়ে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : : স্বামীকে গ্রেফতার ও সন্তানের সন্ধান চেয়ে গাইবান্ধায় সংবাদ সম্মেলন হয়েছে।

বুধবার দুপুরে গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন করেন শামীমা নাসরিন নামের এক গৃহবধু। শামীমা নাসরিনের বাবার বাড়ি গাাইবান্ধা শহরের থানাপাড়া এলাকায়। তিনি ওই এলাকার মৃত সদরুল আমিনের মেয়ে।


সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তেব্যে তিনি বলেন, ২০০২ সালের ২৫ জুন ঢাকার খিলগাঁও থানার দক্ষিন বনশ্রী এলাকার সাইফুল হকের সাথে আমার বিয়ে হয়। এরপর দশ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করেন তিনি। টাকা না দেওয়ায় আমাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়। এক পর্যায়ে ইন্সুরেন্সের কথা বলে আমার কাছ থেকে কৌশলে কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে আমাকে তালাক দেন সাইফুল। 


পরবর্তীতে চাকরির অসুবিধা হতে পারে বিবেচনায় আবারও ২০০২ সালের ৭ ডিসেম্বর কাবিননামার মাধ্যমে আমাদের বিয়ে হয়। তাসিনুল হক নামে ১৩ বছর বয়সের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে আমাদের। গত দুই বছর থেকে গাইবান্ধায় বাবার বাড়িতে থাকছি আমি। 


তিনি আরও বলেন, গতবছরের ২২ আগস্ট সাইফুলের বিরুদ্ধে গাইবান্ধা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে যৌতুক বিরোধী আইনে মামলা দায়ের করি। গতবছর ১১ ডিসেম্বর আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলেও এখন পর্যন্ত সাইফুল গ্রেপ্তার হননি। শামীমা সুলতানা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, আমার সন্তানকে কোথায় কি অবস্থায় রাখা হয়েছে তাও আমি জানিনা। আমি সাইফুল হককে গ্রেফতার ও আমার সন্তানকে ফেরত চাই। আমি বর্তমানে মানবেতর জীবনযাপন করছি। 


শামীমা নাসরিনের আইনজীবী সারওয়ার হোসেন বাবুল জানান, মেজর সাইফুল হক চট্টগ্রাম সেনানিবাসে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে কর্মরত। তাকে আদালতে হাজির হবার জন্য তিনবার সমন জারি করা হয়েছিল। তিনি হাজির না হওয়ায় পরে তার বিরুদ্ধে গত বছরের ১১ ডিসেম্বর আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সাইফুল হককে গ্রেফতার করা হয়নি। 


Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন