সদ্য সংবাদ

 নারায়ণগঞ্জ ডিবির ক্যাশিয়ার আনোয়ার আতঙ্কে ব্যবসায়ীরা!   ১৮ বছর বিমানবন্দরে বসবাসকারী সেই ইরানির মৃত্যু   ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদারে আগ্রহী পুতিন   কোনো বাধা বিএনপিকে ঠেকাতে পারবে না : রিজভী  পাকিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বসেরার মুকুট ইংল্যান্ডের   ঢাকাতেই হবে হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন ও তল্লাশি- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   দুর্ভিক্ষ আসছে আতঙ্কে মানুষ  সাত পাকে বাঁধা পড়লেন 'আশিকি টু' ছবির সুরকার- গায়িকা  ডেঙ্গু: আরও ৭ মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৮৭৫   ১০০ সেতু চালু হওয়ায় দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে: প্রধানমন্ত্রী   অধিকার আদায় না করে ঘরে ফিরে যাব না: ফখরুল  ড্রোন নিয়ে মিথ্যা বলছে ইরান: জেলেনস্কি   ৩০তম বিসিএসের সেই পুলিশ কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত   ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশে আমরাও থাকব: মান্না  কোনো সিমই বিক্রি করতে পারবে না গ্রামীণফোন   সাংবাদিকদের আয়কর মালিকপক্ষই দেবে: হাইকোর্ট   বিয়েতে দেনমোহর ১০১টি বই   অবাধ ও স্বচ্ছ নির্বাচনে সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্র'   মানুষের ওপর আক্রমণ করলে রক্ষা নেই: প্রধানমন্ত্রী   কপ-২৭ সম্মেলন: ১০০ বিলিয়ন ডলার চায় বাংলাদেশ

হিজাব নারীদের শান্তির ঠিকানা: পাক অভিনেত্রী

 Tue, Nov 14, 2017 3:00 AM
 হিজাব নারীদের শান্তির ঠিকানা: পাক অভিনেত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট : : প্রসিদ্ধ পাকিস্তানি অভিনেত্রী নুর বুখারি শোবিজ অঙ্গন ছেড়ে ধর্মের দিকে আসার ও হিজাব গ্রহণের কারণ বলেছেন।

 দুবাই এক সাক্ষাতকারে তিনি ধর্মের দিকে মনোবেশ করা ও হিজাব গ্রহণের কারণ বলেন। কিছুদিন পূর্বে তিনি শোবিজ অঙ্গন ছেড়ে ধর্মের দিকে ফিরে আসায় স্যোশাল মিডিয়ায় হইচই পরে।


মিডিয়াপাড়া ও তার ভক্তগণ তার এ পরিবর্তনের কারণ জানার জন্য ব্যাকুল ছিলেন। তিনি ধর্মের দিকে ফিরে আসার কারণ বলে দেন। চৌদ্দ বছর বয়সে ‘আমি চাই চাঁদ’ চলচিত্রের মাধ্যমে অভিনয় জগতে তার ক্যারিয়ার শুরু হয়। দুবাই এক সাক্ষাতকারে ধর্মের দিকে মনোবেশ করা ও হিজাব গ্রহণের কারণ বলেন, প্রত্যেক কাজ মহান আল্লাহর ইচ্ছা অনুযায়ি হয়। আমার বিয়ে বিচ্ছেদের পর অত্যন্ত খারাপ সময় অতিবাহিত করি। সে সময়টা আমার জন্য খুব সঙ্কটময় ছিল। আমি বুঝতে ছিলাম না কি করব? যখন কোন বিষয় খুব বেশি খারাপ হওয়া শুরু হয়, তখন আর মাথা কোন কাজ করে না। সে সময় আমি ধর্মের দিকে ঝুকে পরি।


নুর বুখারি তার বিয়ে বিচ্ছেদ সম্পর্কে বলেন, বিয়ে বিচ্ছেদের পর আমি সম্পূর্ণরূপে ভেঙ্গে পরি। স্বামী থেকে বিচ্ছেদের পর আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় কাটে। একাকিত্ব আমাকে ভীষণ পীড়া দিত। এ সময় এক নারী মুরশিদের সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। তার পরামর্শে আমি ইবাদত করা শুরু করি। এরপর আমার জীবনের সমস্যাগুলি কমতে থাকে। আর বিয়ে বিচ্ছেদের কষ্টগুলো ঘুচে যায়।


তিনি আরও বলেন, আমাকে হিজাব পরতে কেউ বাধ্য করেনি। বরং পবিত্র রমজান মাস থেকে আমি হিজাব পরা শুরু করেছি। তারপর আর হিজাব ছাড়িনি। হিজাব পরার পূর্বে আমার কিছু সঙ্কোচ ছিল। কিন্তু হিজাব পরা শুরু করার পর আমার জীবনে শান্তি নেমে আসে। আমার অভিজ্ঞতা জীবনের শান্তি ধর্মের নিয়ম অনুযায়ি চলা ও নারীদের হিজাব পরার মাঝেই। ধর্মের দিকে ফিরে এসে আমার জীবনের সঠিক অর্থ খুঁজে পেয়েছি।


সূত্র : ডেইলি পাকিস্তান উর্দু

Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement
Advertisement

আরও দেখুন